পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (তৃতীয় বর্ষ).pdf/১৮৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬8 আৰ্য্যবৰ্ত্ত । ৩য় বর্ষ-৩য় সংখ্যা । অভ্যস্ত। অন্তঃসারশূন্য বাহাড়ম্বরে বৌদ্ধসঙ্ঘ ব্ৰাহ্মণগণকর্তৃক পরাজিত হইল। বৌদ্ধসত্তেঘর ধৈৰ্য্যচ্যুতি হইল ও পদস্থলন আৱব্ধ হইল। অবনতির চরমসীমায় উপস্থিত হইয়া শান্তিময় মহাজিনের শান্তিময় ধৰ্ম্ম নিরীহ আৰ্য্যাবৰ্ত্তবাসিগণের রক্তস্রোতে আৰ্য্যাবৰ্ত্ত হইতে তাড়িত হইল। নিরীহ সদ্ধৰ্ম্মে প্রকৃত বিশ্বাসী জনসমূহের রক্তস্রোতে সদ্ধৰ্ম্মের নাম দাক্ষিণাত্যের প্রত্যেক উপত্যক হইতে ধৌত হইল। যাহারা অবশিষ্ট রহিল। তাহাদিগের ধৰ্ম্মের গণ্ডীর মধ্যে আবদ্ধ রহিয়া তাহারা অনন্তের শেষ পৰ্য্যন্ত দুৰ্জেয় থাকিবে । কিন্তু যাহা কখনও হয় নাই তাহা তখনও হইল না। প্রসারবিহীন ক্ষুদ্র পরিসরে আবদ্ধ প্ৰাচীন ব্ৰাহ্মণ্য ধৰ্ম্মের গিরিদুর্গ জিত হইয়াছে। সংস্কার দূর হইয়াছে, নাম বর্তমান আছে ; সার অপহৃত হইয়াছে, ছায়া এখনও অপসৃত হয় নাই। আমি ভূত, ভবিষ্যৎ, বর্তমান দেখিতে পাইতেছি ; দেখিতেছি, যাহা অাছে তাহাও থাকিবে না ; কারণ, জগতে অসত্যের স্থান নাই । যাহা দেখিয়ছিলাম তাহা পূৰ্বে কখনও দেখি নাই, তাহার নাম যথেচ্ছচার ও সুশৃঙ্খলার অভাব। তাহা দেখিলে বোধ হয়, যাহারা এ অবস্থায় উপনীত হইয়াছে তাহারা শীঘ্রই পরিবর্তিত বা বিলুপ্ত হইবে। দশপুর হইতে সেনা আসিয়াছে। তাহাদিগের অধিনায়ক বৰ্গ, অস্ত্রসস্ত্ৰ, অনুচর, পার্শ্বচর প্রভৃতি সমস্তই উপস্থিত ; কিন্তু তাহাদিগের মধ্যে সুশাসন বা সুশৃঙ্খলার একান্ত অভাব। সেনা আসিবার পূর্বে বহুসহস্ৰ পটমণ্ডপ আসিয়াছে ; কিন্তু শৃঙ্খলার অভাবে শিবিরস্থাপনের আদেশ হয় নাই, সুতরাং শিবির স্থাপিত হয় নাই। দিব্যাবসানে শ্ৰান্ত সেনাদল আসিয়া যে স্থানে আশ্রয় দেখিল সেই স্থানেই অধিবাসিগণকে নিষ্কাশিত করিয়া তাহা অধিকার করিল। ভিক্ষু ও শ্রমণগণ আশ্রয়বিহীন হইয়া রাত্রিযাপন করিলেন, কিন্তু সৈনিকগণের প্রতি অত্যন্ত বিরক্ত হইলেও প্ৰকাশ্যে কোন কথা বলিতে সাহস করিলেন না। রাত্রি অতিবাহিত হইলে পটমণ্ডপ স্থাপিত হইল, সেনাদল শিবিরে চলিয়া গেল, কুটীর ও গৃহসমূহের অধিবাসিগণ স্ব স্ব স্থানে প্রত্যাঘৰ্ত্তন করিল। ক্রমে প্রাচীন স্তুপের বেষ্টনীর বহির্ভাগে কতকগুলি বিপণী স্থাপিত হুইয়াছে, তাহাতে আহাৰ্য্য, বস্ত্ৰাদি ও সুরা বিক্রীত হইতেছে। বিপণীর চতুঃপার্শ্বে সেনাদলের পার্শ্বচারিণীদিগের পর্ণকুটির নিৰ্ম্মিত হইয়াছে। বিপণী