পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (তৃতীয় বর্ষ).pdf/৩০২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՀԳե: আৰ্য্যাবৰ্ত্ত । ৩য় বর্ষ-৪র্থ সংখ্যা । বলিলেন, “আপনার পুণ্যের সংসার—পুণ্যের শরীর, আপনি তা হিসাব মিলাইয়াই বসিয়া আছেন। নিকাশের তলবে আপনার ভয় কি ?” “ভয় করিয়া কে কবে নিস্তার পাইয়াছে ? সে তলব যে অমান্য করিবার উপায় নাই ! আজিও হিসাব খাতাইয়া দেখিতেছিলাম। হিসাক মিলাইয়া আনিয়াছি, কিন্তু একটু অবশেষ যায় নাই। ভাবিয়াছিলাম, অগ্রহায়ণে সরোজার ও মাঘ বা ফাল্গুনে দেবীচরণের বিবাহ দিব । তাহার পর নীরজার বিবাহ দিলেই নিশ্চিন্ত । কিন্তু তাহা ত হইল না ।” “দেবীর বিবাহের কিছু স্থির করিলেন ?” “সম্বন্ধ ত আসিতেছে, কিন্তু স্থির করি কোথায় ? যে দিকে টাকার আঁচটা অধিক বামাচরণের মত সেই দিকে । আমি বলিয়াছি, ও পাপ দরিদ্রের ঘরে ইচ্ছা করিয়া ঢুকাইব না। তিন ছেলের বিবাহে যে প্রলোভনে ভুলি নাই বুদ্ধ বয়সে আর সে প্রলোভনে ভুলিব না। আমি ব্ৰাহ্মণ ভিক্ষায় আমার অপমান নাই। কুটুম্বের টাকায় ধনী হইবার প্রবৃত্তি আমার নাই। আমি চাহি ভাল ঘর, যে কুটুম্বের দোষে-বধুর দোষে সংসার ভাঙ্গিয়া না যায়।” “ইহাই ত আপনার উপযুক্ত কথা।” হুক হইতে আস্ত্ৰপত্ৰনিৰ্ম্মিত নলটি খুলিয়া লইয়া ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয় হুঙ্কাটি চট্টোপাধ্যায় মহাশয়কে দিলেন । হুঙ্কায় ভূত্যদত্ত আর একটি নল পাবাইয়া চট্টোপাধ্যায় মহাশয় ধূমপান করিতে লাগিলেন। দুরে অশ্বব্যানের চক্রঘর্ঘর শ্রুত হইল। দেখিতে দেখিতে রাজপথে একখানি যান ধূলি উড়াইয়া দ্রুতবেগে ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয়ের গৃহের দিকে আসিতে লাগিল। যানখানি ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয়ের গৃহদ্বারে আসিয়া স্থির হইতে না হইতে বামাচরণ যান হইতে অবতরণ করিল। তাহার মুখ মলিন ; সে মুখে veľqk) 712 5jať i ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয় বিস্মিত ভাবে পুত্রের দিকে চাহিলেন । কারণ, ছেলেরা ষ্টেশন হইতে হাটিয়াই গৃহে আসিত। তাহদের গাড়ীতে না আসিবার কারণও একাধিক। প্রথমতঃ ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয়ের সংসারে সকলকেই মিতব্যয়িতা অবলম্বন করিতে হইত। তিনি বলিতেন, যখন আহাৰ্য্য পরিধেয় প্রভৃতি নিত্যব্যবহাৰ্য্য দ্রব্যের মূল্য দ্বিগুণ হইয়া উঠিয়াছে তখন বিলাস বর্জন করা ব্যতীত গৃহস্থের গত্যন্তর নাই। এ অবস্থায় যে বুঝিয়া চলিতে না শিখিবে তাহারই সৰ্ব্বনাশ হইবে। তিনি গৃহে সকল ব্যবস্থায় মিতব্যয়ী ছিলেন ;