পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/২১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চণ্ডীদাস শিরোমণি মহাশয়ের পরামর্শেই গৃহে প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করেন। সিরাজদৌলার সহিত ফৈজীর কথোপকথন বাঙ্গালাতে হইতে হইতে সহসা অকারণে হিন্দীতে হইয়াছে। ইহাতে রাসভঙ্গ হইয়াছে।। ৩৮৬ পৃষ্ঠায় প্ৰকাশ, “কৃত্তিবাসের একটী পুত্র, পুত্রবধু দুইটী কন্যা ও স্ত্রীমাত্র এখন তাহার সংসারে বিদ্যমান আছে।” ১৭ পৃষ্ঠায় কৃত্তিবাস বলিয়াছিল, “সংসারে ছয়টা পোষ্য।” একটির বিয়োগকথা গ্রন্থে নাই। লেখক একই স্থানে সংস্কৃত ও প্রচলিত শব্দের ব্যবহার করিয়াছেন,-“আমার স্বামিপুত্রের কি অসাবধানতা ছিল ? রাজার ংসার, রাজভৃত্যগণের পরিচর্য্যা ; রাজবৈদ্যগণ নিয়ত মুখপানে চাহিয়া ছিল ; কিন্তু তঁাহাদিগকেও ত কৈ রাখিতে পারিলাম না। তবে আর কেন ? ভগবানের যা মনে আছে, তাই হবে।” “ভবানী সহমরণে যাইবেন, অনেকদিন হইতেই মনস্থ করিয়াছিলেন”-লেখকের এই উক্তিতেই আমাদের সর্বপ্রধান আপত্তি । যে হিন্দুত্ৰমণী স্বামীর মৃত্যুতে স্বেচ্ছায়-সানন্দে চিন্তানলে দেহত্যাগ করিতেন। সেই হিন্দুরমণীর আদর্শ স্থানীয়া রাণী ভবানীর পক্ষে স্বামিবিয়োগের পূর্ব হইতেই সহমরণে যাইবেন মনস্থ করা অস্বাভাবিক। স্বামীর মৃত্যুকে তাহার পক্ষে সহমরণে যাইবার আকাঙ্ক্ষণ স্বাভাবিক, তখন র্তাহার স্মৃতিপথে মুর্শিদাবাদে মহারাষ্ট্ৰীয় মহিলার সহমরণের কথা সমুদিত হওয়াও স্বাভাবিক ; কিন্তু তঁাহার পক্ষে পূর্ব হইতেই কল্পিত বৈধব্যের কৰ্ত্তব্য-নিৰ্দ্ধারণে র্তাহার গৌরব ক্ষুন্ন হয়। যাহা সুন্দর তাহার সামান্য ক্রেট সহজে দৃষ্ট হয়-ইংরাজ কবি বলিয়াছেন, তুষারের উপর ক্ষুদ্রতম দাগটিও দৃষ্ট হয়। তাই এই গ্রন্থের এই সকল সামান্য ক্রট সহজে লক্ষিত হইয়াছে ; তাই এ সকলের উল্লেখ করিলাম। আশা করি ভবিষ্যৎ সংস্করণে এ সকল ক্ৰটি থাকিবে না । যাহারা এই গ্ৰন্থ পাঠ করিবেন-তঁাহারা ইহার বহু গুণেও লেখকের চিত্র ও চরিত্রাঙ্কনক্ষমতায় মুগ্ধ হইবেন । ইহাতে পাঠক অৰ্দ্ধ শতাব্দীর বাঙ্গালার রাজনৈতিক ও সামাজিক ইতিহাস ও সঙ্গে সঙ্গে আদর্শ হিন্দুরমণীর জীবনব্যাপী পুণ্য কাৰ্য্যের বিবরণ জানিতে পরিবেন। এরূপ পুস্তকের আদর অবশ্যম্ভাবী। দুই সপ্তাহ মধ্যে যে দুই সহস্ৰ পুস্তক বিক্রীত হইয়াছে ইহা আমাদের গর্ব করিবার -বিষয়। আশা করি, এই গ্রন্থের প্রচার ফলে বাঙ্গালার গৃহে গৃহে আবার রাণী ভবানীর আদর্শে অনুপ্ৰাণিত গৃহলক্ষ্মীর আবির্ভাব হইবে ; এবং তাহারই ফলে বাঙ্গালার জীবন পুণ্যময় ও সুখময় হইবে।