পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/২২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ro8 भांपैांवर्ड så ܕܵܘ-ܠ ܐܰܖ JEen i তঁহাদের পক্ষে ইহাৱা ভীষণত হৃদয়ঙ্গম করা দুরূহ। শীতের পর গ্রীষ্মের প্রাদুঅৰ্ভাবে বৃক্ষেয় পত্র শুষ্ক হইয়া দারুণ উষ্ণ বায়ু সংযোগে বা বৃক্ষের ঘর্ষণে অথবা গ্রীষ্মাতিশয্যে দাবানলের উৎপত্তি হয়। ৪০ বা ৫০ ফিট উচ্চ হইয়া অগ্নিশিখা ধু ধু করিয়া সমস্ত বৃক্ষরাজি অঙ্গারে পরিণত করিয়া থাকে। আরণ্য জীবজন্তু উত্তাপে প্ৰাণত্যাগ করে। কেবল হস্তী এবং ভলুক দূৱ হইতে দাবানলের আভ্ৰাণ পাইয়া জল ছড়াইয়া চারিদিক আদ্র করিয়া স্ব স্ব প্ৰাণ রক্ষা করিয়া থাকে। জমীর উর্বরতাপরিবদ্ধনের জন্য বা শীকারের সুবিধার জন্য অথবা হিংস্ৰ জন্তুর আবাসগহবরের উচ্ছেদ সাধনের নিমিত্ত লোকে পূর্বে যে অগ্নিকাণ্ডের ব্যবস্থা করিত বা এখনও করিয়া থাকে তাহা হইতে লোককে বিরত 夺孤1不要邵可C硬1 >>e心一分 খৃষ্টাব্দে ৪৪৪০০ বৰ্গ মাইল বন্য দেশ বিশেষ সাবS DDDD SLLL YKBBBDS BBDS BDBBBD DDDD S BDDBDBS DBBB তাহা নির্বাপিত করিবার ব্যবস্থা থাকা সত্ত্বেও সে বার শতকরা ৬ ভাগ জমি দাবানলে বিনষ্ট হইয়াছিল। অনেক সময় অরণ্য-প্ৰান্তরে ও অরণ্যের সন্নিকটে গ্রাম ঘসাইয়া সুফল লাভ ঘটিয়াছে। ১৮৯৬ সালের দুর্ভিক্ষের সময় প্রায় ১১৫ প্রকার আহাৰ্য্য আরণ্য সামগ্ৰী যুক্ত প্রদেশের দুইটি জিলার লোকের বুভূক্ষা নিবারণ করিয়াছিল । লোকে আরণ্য দ্রব্যের যথাযথ ব্যবহার বা কাৰ্য্যকারী গুণাগুণ জানিলে আরণ্য দ্রব্যের মূল্য ও আদর অনেক অধিক হইত। অধুনা দেরাদুনে আরণ্য বিদ্যালয় স্থাপিত হইয়াছে। এই দেরাদুন বিদ্যালয়টিকে কলেজে পরিণত করিয়া শীঘ্রই কতিপয় প্ৰাদেশিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হইবে, এইরূপ প্ৰস্তাব হইয়াছে। গত ১৯০৬ সালে Forest Research Institute স্থাপিত হইয়াছে । তথায় বিশেষজ্ঞগণ আরণ্য দ্রব্যের গুণাগুণ পরীক্ষা করিতেছেন। এতদ্ভিন্ন জীবাণু ও কীটের দংশনে বৃক্ষের যে ক্ষতি হইয়া থাকে তাহা হইতে কিরূপে পরিত্রাণ পাওয়া যাইবে তাহারও উপায় উদ্ভাবিত হইতেছে। ফল কথা যে ভাবে আমাদিগের দেশে অরণ্য-সংরক্ষণের চেষ্টা চলিতেছে তাহাতে অন্যান্য সভ্য দেশের ন্যায় আমাদিগের দেশেও অদূর ভবিষ্যতে সুফল লাভ ঘটবে, আশা করা যায়। প্ৰায় অষ্টবিংশ বৎসর পূর্বে সার রিচার্ড টেম্পল বলিয়াছিলেন যে, “ভারতে আমরা যে প্রকারে অরণ্য-সংরক্ষণ বিভাগের অনুষ্ঠান করিয়াছি এবং তাহাতে বৈজ্ঞানিক, ব্যবহারিক ও কাৰ্য্যকারী জানানুশীলন ষেরূপে পরিচালিত হইতেছে তাহাতে আমার মনে হয় যে, কোন দেশের সহিত তুলনায় আমাদিগের এই বিভাগ কোন অংশে নৃত্যুন নহে।” আমরাও র্তাহার কথায় পুনরুক্তি করিয়া ভবিষ্যতে সুফললাভের অপেক্ষা করিতেছি। শ্ৰীকালীকুমার দত্ত ।