পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/২৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૨૭૦ আৰ্য্যাবৰ্ত্ত ལག་སོ-བྱསོ་གང་གn། ། পাঁচ হাজার বৎসর পূর্বে উহাতে যে পরিমাণ লবণ ছিল, এখন তদপেক্ষা অধিক পরিমাণে লবণ আছে এবং পাচ হাজার বৎসর পরে লবণের পরিমাণ আরও অধিক হইবে। বিশুদ্ধ জল হইতে যত সহজে বাষ্প উখিত হয়, লবণাক্ত জল হইতে তত সহজে বাষ্প উখিত হয় না। অতএব সমুদ্র-জলের বর্তমান সময়ের লবণাধিক্য বশতঃ উহা হইতে পূর্বে যে তাপে যে মাত্রায় বাষ্প উখিত হইত, এখন সেই তাপে তদপেক্ষা অল্প মাত্রায় বাষ্প উখিত হইবে। (৩) সমুদ্র-জল হইতে শুধু বাষ্প উখিত হইলেই বৃষ্টি হয় না ; বৃষ্টি উৎপাদনের পক্ষে দেশের পর্বতরাজি বিশেষ উপকারী। হিমালয় ও অন্যান্য পর্বতমালা না থাকিলে ভারতবর্ষ এক বিশাল মরুভূমিতে পরিণত হইত ; বঙ্গোপসাগর ও ভারত মহাসাগরের বাস্পারাশি হিমালয় ও তাহার সহযোগিবর্গের গাত্রসংলগ্ন হইয়া ভারতবর্ষের জন্য বৃষ্টি এবং নদী সৃষ্টি না করিয়া হয়ত কোন সুদূর মেরুপ্রদেশে উপনীত হইয়া জমিয়া বরফ হইত। কিন্তু ভারতবর্ষের জন্মদাতা হিমালয় আপনার বিশাল বক্ষ প্রসারিত করিয়া ভারতভূমির জলরাশি এই দেশে রাখিয়া আপনার কন্যাকে ৱক্ষা করিতেছেন। gf কিন্তু পাহাড়গুলিও অক্ষয় নহে; তাহারাও বয়োবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে যেন দিন দিন নত হইবা পড়িতেছে। যে বিশাল শক্তি এককালে উহাদিগকে উদ্ধে উৎক্ষিপ্ত করিয়াছিল, সে শক্তি আর উহাদিগকে সাহায্য করিতেছে না। কিন্তু যে মাধ্যাকর্ষণশক্তি উচ্চ ও নীচকে সমান করিবার জন্য ব্যগ্ৰ-সেই মহাশক্তি এক দিনও পৰ্ব্বতের দম্ভ দেখিয়া ভুলে নাই। সে পৰ্ব্বতের জন্মদিন হইতেই উহাকে এককালে সমভূমি করিবে বলিয়া প্ৰতিজ্ঞা করিয়া আপনার কাৰ্য্য আরম্ভ করিয়াছে। সে দিন দিন বায়ু, বৃষ্টি, বরফ ও পশুপক্ষীর সাহায্যে পর্বতগাত্র একটু একটু করিয়া ক্ষয় করিয়া নদীর সাহায্যে পৃথিবীর নিম্নস্থানসমূহে লইয়া ফেলিতেছে। এখনও তাহার কাৰ্য্য শেষ হয় নাই-আরও কত যুগযুগান্তের পর শেষ হইবে কে জানে ? তবে ইহা নিশ্চয় যে, জাগতিক ঘটনাবলী যদি এইরূপ ভাবেই নিয়ন্ত্রিত হয়, তবে এককালে-অবশ্য সে কাল বহুদূৱবৰ্ত্তী-পৰ্বতগুলি সমভূমি হইবেই। শুধু পৰ্ব্বতগুলিই বা বলি কেন, সমগ্ৰ ভূভাগ সমতল হইয়া এক বিশাল সাগরের দ্বারা আবৃত হইবে। বৰ্ত্তমানে সে সময়ের কথা ভাবিবার প্রয়োজন নাই; কারণ, তখন মানুষই থাকিবে না। তবে পৰ্ব্বত সমভূমি হইবার বহু পুর্বেও যে বৃষ্টির অল্পতা নিবন্ধন মানুষ অনেক কষ্ট পাইবে, তাহাতে সন্দেহমাত্ৰ নাই।