পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৩৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আশার সমাপি । లిks হইয়া পড়িতেছিলাম। সমুদ্রের অনাবৃত, সীমাহীন, উদারতা সে জালা প্রশমিত করিতে পারিল না । , এইরূপ অশান্ত হৃদয়ে কিছু দিন বেড়াইলাম, তাহার পর আবার যখন আমার পক্ষে ননীর আকর্ষণ প্ৰবল হইয়া আসিতেছিল, ঠিক সেই সময়ে যে ঘটনাটি ঘটিল। তাহার স্রোতে আমার গৌরবের শেষ চিকুটুকু পৰ্যন্ত ভাসাইয়া লইয়া গেল। একদিন আমি ও আমার দিদি সূৰ্য্যকান্ত বাবুর বাড়ীতে নিমন্ত্রিত হইয়াছিলাম। তাহার আরও কয়জন বন্ধুও আহারের জন্য নিমন্ত্রিত হইয়াছেন। সন্ধ্যা উত্তীর্ণ হইয়াছে। বৃদ্ধদিগের উচ্চ হাস্তে ও শিশুদিগের কলরবে গৃহ আমোদিত হইয়াছে। উৎসবের কারণ শুনিলাম যে, ননী বি. এ. পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার সংবাদ কলিকাতা হইতে আজ আসিয়াছে। কি সৰ্ব্বনাশ ! মধ্যাঙ্কে আমিও একখানি চিঠি পাইয়াছিলাম। তাহাতে আমি পাশ না হওয়ায় আমার ভগিনীপতি দুঃখ প্ৰকাশ করিয়াছেন। আমি তাহাতে দুঃখিত হই নাই, কারণ, আমার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার কোন সম্ভাবনাই ছিল না । ননীর সাফল্য-সংবাদে আমি ক্ষোভে, ক্ৰোধে, লজ্জায় যেন একেবারে জ্ঞানশূন্য হইয়া গেলাম। কি বিড়ম্বন, ইহারই নিকট উপদেষ্টার আসন গ্ৰহণ করিয়া, এত দিন বিদ্যার জন্য বাহাদুরী লাইতে চেষ্টা করিয়াছি ! ইহা ভাবিতে ভাবিতে আমি ঘৰ্ম্মাপ্লিত হইয়া উঠিলাম ; এবং সন্ধ্যার অন্ধকারে সে স্থান পরিত্যাগ করিলাম। সূৰ্য্যকান্ত বাবুকে সংক্ষেপে শারীরিক অসুস্থত জানাইয়া বিদায় লইলাম। ননীর সহিত সে দিন দেখা হয় নাই। বাড়ীতে ফিরিয়া আসিয়া বারান্দায় শুইয়া পড়িলাম। যে মুক্ত বায়ু নিদাঘ মধ্যাহের উত্তাপকেও শীতলতায় পরিণত করিত, আজ তাহা আমার গাত্ৰজাল দুর করিতে পারিল না । আহত ফণী যেমন আপনাকে আপনি দংশন করিয়া জর্জরিত হয়, অভিমানাহত আমি তেমনই আপনার বিষে আপনি দগ্ধ হইতেছিলাম, এই অনলদাহে প্ৰেমই অধিক ইন্ধন সংগ্ৰহ করিয়া দিল। বুঝিলাম, স্বয়ং ইচ্ছা করিয়া এমন এক ক্ষুধিত রাক্ষসকে জাগাইয়া তুলিয়াছি যে, সমস্ত জীবনটি তাহার। নিৰ্ম্মম কবলে অল্পে অল্পে নিম্পেষিত হইতেই হইবে। তারকাখচিত বিশাল গগনের দিকে চাহিলাম, শুভ্ৰফেনসজিত তরঙ্গরাশির দিকে চাহিয়া রহিলাম। কিছুতেই শান্তি দিতে পারিল না। আমার ভগিনী যখন গৃহে ফিরিলেন, তখন আমি নিদ্রার ভাণ করিয়া রহিলাম। ননীর সঙ্গ একেবারেই বর্জন করিলাম। ননীও আর আমার সহিত আলাপ (