পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৩৫০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ਚੋਣ తీes কীটপু এত ক্ষুদ্র যে, কেবল অণুবীক্ষণের সাহায্যেই দৃষ্ট হইতে পারে। কৰ্ণেলিয়া প্ৰথমে এই সকল কীটপু দেখিয়াছিলেন। নাসেম এবং লেবাট কর্তৃক ইহারা ভিন্ন ভিন্ন নামে অভিহিত হইয়াছে। কিন্তু সকলেই এই ব্যাধির ভেষজনির্ণয়ে ব্যর্থশ্ৰম হইয়াছেন। পাস্তুর অনেক চেষ্টার পর এই ব্যাধির প্রতিকারের উপায় উদ্ভাবন করেন। তিনি প্ৰতিপন্ন করেন যে, যদি কোন ব্যাধিগ্ৰন্ত গুটিপোকাকে জলের সহিত বাটিয়া ফেলা যায় এবং ঐ মিশ্র পদার্থকে পত্রের উপর তুলি দ্বারা লাগাইয়া সুস্থ পোকাদিগকে তাহা ভক্ষণ করান যায়, তাহা হইলে তাহারা ব্যাধিগ্ৰস্ত হয়। ইহাতে সপ্ৰমাণ হয় যে, কীটাঙ্গুর বীজসকল গুটিপোকার ডিম্বকেও আক্রমণ করিয়া থাকে । সুতরাং ডিম্বসকলকে বিনষ্ট করিতে পারিলে এই ব্যাধির উৎপত্তি নিবারণ করা যাইতে পারে। স্ত্ৰীজাতীয় গুটিপোকাগুলিকে পৃথক করিয়া রেশমী কাপড়ে ডিম্ব পাড়িতে দেওয়া হয় ; এবং সেই কীটজননীকে ভবিষ্যতে পরীক্ষার জন্য কাপড়ের এক কোণে আলপিন দিয়া গাঁথিয়া রাখা হয়। কিছুদিন পরে সেই গুটিপোকাকে জলের সহিত বাটিয়া এক এক ফোটা করিয়া জল অণুবীক্ষণের সাহায্যে পরীক্ষা করা হয়। এই পরীক্ষায় যদি কোন জীবানু লক্ষিত হয়-তােহা হইলে পূৰ্ব্বোক্ত ডিম্ব সকলকে পুড়াইয়া ফেলা হয়। কিন্তু জীবানু লক্ষিত না হইলেই তাহাদিগকে ব্যবহার জন্য রাখা হয়। সংক্রামক ব্যাধির সহিত কীটগুৱ সম্বন্ধ সংস্থাপিত হইলে এরূপ প্ৰমাণ হইল না যে, কীটাগু হইতেই বাধির উৎপত্তি হয়। কীটপু সকলকে ব্যাধিগ্ৰন্ত গুটিপোকার গাত্র হইতে পৃথক করিবার কিম্বা তাহাদিগকে কৃত্রিম উপায়ে উৎপাদন করাইবার কোন উপায় লক্ষিত হইল না। ডানেনাকের পরীক্ষার ফলও প্ৰতিবাদাসাপেক্ষ । তিনি বলিয়াছিলেন যে, Spleenic Fever দণ্ডাকৃতি কীটাগুর দ্বারা উৎপাদিত। অনেকে বলিতে লাগিলেন, যদি এই সকল দণ্ডাকৃতি কীটাগু। বিশিষ্ট রক্ত দ্বারা কোন সুস্থ মেষকে সংক্রামিত করা যায়, তাহা হইলে সেই মেষের মৃত্যুর পর তাহার রক্তে দণ্ডাকৃতি কীটাগু,লক্ষিত হয় না। আবার কোন কোন বৈজ্ঞানিক বলিতে লাগিলেন, উক্ত ব্যাধির দণ্ডাকৃতি-কীটগুবর্জিত রক্ত দ্বারা সুস্থ মেধাকে সংক্রমিত করিলে সেই মেষের রক্তে দণ্ডাকৃতি কীটন্ম লক্ষিত হয়। vocacy (2 fert FC5 Cr, Anthrax frey Spleenic Fever as હtগুর্জাব কোন কোন ঋতুতে বা কোন কোন স্থানে বিশেষভাবে পরিলক্ষিত হয়। কিন্তু ১৮৭২ খৃষ্টাব্দে বলিনজার প্রমাণ করেন যে, Anthraxএ রক্ত দণ্ডাকৃতিকীটাগুলিবর্জিত হইলেও তাঁহাদের বীজ সকল বহু দিন পৰ্যন্ত বিষাক্ত থাকে। এই