পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৩৯১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


నిశ్చి বৰ্ত্ত : ১ম বর্ধ-ঊষ্ঠ সংখ্যা , তখন ঢাকায় অতি উৎকৃষ্ট নৌকা নিৰ্ম্মিত হইত ; প্রতি বৎসর ঢাকা হইতে দিল্লীতে সম্রাটের জন্য নৌকা প্রেরিত হইত। রাজেশ্বর ঢাকা হইতে দুইখানি সুসজ্জিত ও সুগঠিত নৌকা আনিয়াছিলেন। রাজেশ্বর দুইজন কৰ্ম্মচারীকে সঙ্গে লইয়া তাহারই একখানি নৌকায় ভ্ৰমণে বাহির হইলেন। কেহ বলিল, তিনি জমীদারী পরিদর্শনে বাহির হইলেন ; কেহ বলিল, গ্রীষ্মে কাতর হইয়া তিনি জলভ্ৰমণে চলিলেন । শেষের কথাটা শুনিয়া গ্রামের লোক হাসিল ; কেহ কেহ বিস্মৃতপ্ৰায় কথা তুলিয়া বলিল, রামনগর পরগণার প্রজারা এইরূপ গরমের অব্যৰ্থ ঔষধ জানে। রাজেশ্বরের নৌকা তা তার জসীদারী ছাড়াইয়া গঙ্গায় আসিয়া পড়িল । রাজেশ্বর মনোযোগসহকারে নদীতীরবন্তী গ্রামগুলি লক্ষ্য করিতেন ; স্থানে স্থানে নৌকা লাগাইয়া তীরে উঠিয়া গ্রামগুলি পৰ্যবেক্ষণ করিতেন। মাসাধিক কালপরে রাজেশ্বর স্বগ্রামে প্রত্যাবৃত্ত হইলেন। c ৰৰ্তমান কলিকাতা হইতে অনতিদূরে অবস্থিত—গঙ্গাতীরবত্তী কোন গ্রামের অধিবাসীরা একদিন প্ৰভাতে দেখিল, গ্রামের ঘাটে কতকগুলি নৌকা বদ্ধ রহিয়াছে। মহিলারা মানের ঘাটে এই সকল নৌকা দেখিয়া অস্নাত অবস্থায় গৃহে ফিরিলেন ; ধীবরগণ মৎস্ত ধরিবার জন্য নৌকা ভাসাইতে আসিয়৷ এই বিস্ময়কর দৃশ্য দেখিয়া ফিরিয়া গেল । ক্ৰমে গ্রামের লোক শুনিল, শাক খালির নবীন ধনী রাজা রাজেশ্বর অত্যধিক মূল্যে তাহাদিগের জমীদারের নিকট হইতে গ্রামখানি ক্রয় করিয়াছেন। ইহার কারণ কেহই জানিত না, কেহ কল্পনা ও করিতে পারিল না । ইহার পর গ্রামবাসিগণের বিস্ময় বদ্ধিত করিয়া নদীতীরে পরিখা খননের ও সৌধনিৰ্ম্মাণের আয়োজন হইতে লাগিল। কান্ধটা অত্যন্ত দ্রুত সম্পন্ন হইতে লাগিল। অল্পদিনের মধ্যেই নদীকূলে পরিখাবেষ্টিত-সুরক্ষিত দুর্গ নিৰ্ম্মিত হইল। সহসা এইরূপ স্থানে দুর্গ নিৰ্ম্মাণের কারণ-নির্ণয়-চেষ্টায় গ্রামবাসীদিগের মস্তিষ্ক বিকৃত হইবার হইবার উপক্রম হইল । V) নিদাঘ নিশীথ। সন্ধ্যার পূর্ব হইতে আকাশে মেঘসমাগম হইয়া সন্ধ্যার কিছু পরে মুষলধারে বর্ষণ হইয়া গিয়াছে। কৃষ্ণপক্ষের চন্দ্ৰ অস্তগত ; চারিদিকে ।