পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৪০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জাহ্নবী তব হার-আভরণ দুলিছে বক্ষ’পর ! হৃদয় খুলিয়া চাহিনু বাহিরে, হেরিনু আজিকে নিমেষে८ि६ ८°६ &र्शं विश्च८], q मनङन श्t८* !” শ্ৰীযোগেশ্বর চট্টোপাধ্যায়। রামায়ণী সভ্যতা ।


e assum

রামায়ণী যুগের ভাষা । -()- রামায়ণী যুগের পূর্বে আৰ্য্যসমাজে দেবভাষা ও মনুষ্যভাষা প্রচলিত ছিল। বেদগুলি দুরূহ দেবভাষায় রচিত ছিল। এই দেবভাষাও চারি শ্রেণীতে বিভক্ত ছিল। বেদের টীকাকার সায়নাচাৰ্য্য দীর্ঘতম ঋষির মন্ত্র * উদ্ধত করিয়া দেখাইয়াছেন যে, তৎকালে চারি প্রকারের ভাষা ব্যবহৃত হইত। ইহার তিন প্রকার ভাষা সাধারণের অবোধ্য দেব-ভাষা এবং চতুর্থ প্রচলিত মানুষ-ভাষা। সায়নের এই মন্তব্যের উপর নির্ভর করিয়া যাজ্ঞিকেরা বলেন যে, ত্ৰিবিধ দুরূহ ভাষায় বেদ রচিত হইয়াছিল, তাহার প্রথম মন্ত্রের ভাষা, দ্বিতীয় কল্পের ভাষা ও তৃতীয় ব্ৰাহ্মণের ভাষা। চতুর্থ ভাষা প্রচলিত লৌকিক ভাষা । নৈরুক্তেরা বলেন, ঋকৃষজু ও সামের ভাষা পৃথক পৃথক তিন প্রকার, চতুর্থ ভাষা লৌকিক ভাষা। নৈরুক্তেরা যাজ্ঞিক-প্ৰদৰ্শিত কল্প ও ব্রাহ্মণকে বেদের অন্তভুক্ত করিয়া বিচার করিয়াছেন।

  • চত্বারি বাক পরিমতা পদানি তানি বিন্দু ব্ৰাহ্মণা যে মনীষিণঃ।

· ७शौ१िcनश्ऊि न५ গায়ন্তি তুরিয়ং বাচ্য: মনুষ্যা বদন্তি ৷৷ ১ ৷৷ ১৬৪ । se