পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৭১৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নাথ, ১৩১ ". মৃত্যু-মিলন ་་ ఆసి রেবা বহুমূল্য গৃহসজ্জার দিকে চাহিল, বাহিরে মনোরম উদ্যান দেখিলা। ” তাহার মনে হইতে লাগিল, সে যেন কোন মায়াপুৱীতে প্ৰবেশ করিয়াছে। একি । স্বপ্ন ! সে কিছুই বুঝিতে পারিল না। তাহার পর সে বলিল, “এ গৃহ কি ? তোমার ?” অজয় সিংহ বলিলেন, “হ ।” “এযে প্রাসাদ ! এই তোমার গৃহ ?” অজয় সিংহ হাসিতে লাগিলেন । রেবা জিজ্ঞাসা করিল, “তবে তুমি কি সৈনিক নািহ ?” অজয় সিংহ উত্তর করিলেন, “আমি সৈনিক ৷” ‘ऊ८द ५० थानांल काश्ांद्ध ?” “আমার ।” . ۰ است - : য়েব কিছুই বুঝিতে পারিল না। সে ক্রমেই অধিক বিস্মিত হইতে লাগিল t তাহার নয়ন-যুগল জলে ভরিয়া আনিল। সে বলিল, “তুমি কি আমাকে । সত্য কথা বলিবে না ?” . সৈনিক তাহার সেই অশ্রুসজল নয়ন দেখিয়া আর স্থির থাকিতে পারিলেন। না ; বলিলেন, “প্রাসাদের এই অংশ আমার জন্য নির্দিষ্ট। আমি রাজার ভ্রাতা— · অজয় সিংহ ।” অজয় সিংহ! যিনি প্রেমলাভ ঘটবে কি না, সন্দেহ করিয়া বহু রাজকুমারীর | সহিত পরিণয়সূত্রে বদ্ধ হইবার প্রস্তাব প্ৰত্যাখ্যান করিয়াছেন, সেই আদর্শ | পুরুষ-সেই বীর-সেই কবি অজরসিংহ তাহার জীবন সার্থক-ধন্য করিয়াছেন। মূহুর্তের জন্য রেবা চেতনাহীন মূৰ্ত্তির মত দাড়াইয়া রহিল, তাহার পর অপ্রত্যা: | শিত আনন্দের আতিশস্যে পতির বক্ষে মুখ লুকাইয়া আনন্দাশ্রুবর্ষণ করিতে । | অজয় সিংহ সেই কোমল কনকলতাকে বক্ষে ধরিয়া ধরায় অমরার মুখঃ অনুভব করিলেন । స్టీ তাহার পর-আনন্দের প্রথম প্লাবন প্রশমিত হইলে অজয় সিংহ পত্নীকে সকল । কথা বুঝাইয়া বলিলেন। তিনি যে রাজাকে না জানাইয়া বিবাহ করিয়াছেনঃ রাজা যে এ কথা জানিতে পারিয়াছেন, দুই ভ্রাতার যে কথোপকথন ইষ্ট্রয় t 德霖 রাজা যে আদেশ করিয়াছেন, অজয় সিংহ একে একে রোবাকে সে সকল কুখঃ বলিলেন । , :