পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (প্রথম বর্ষ).pdf/৭৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


. . . . . ." ፡ ፍ ̈ • • •. " . . . تیره ۴ - ح * . - 疆 "t == "" = T ፲ ;“÷ * :ጎ · . ጆ} ̈. r: ۔ ۔ i. ጆኻ ዪ: خه . . . I ్క, గ్క్కౌ • F . , . *ғъ. : " " . . . - F | " " قد = ع = لم تن - في .". ... 1 یا : "... .. خاس ب ها از "" .. .:د.؟ - له = . . . . . . . " st་ཁོ་- ས་ན་རིགrt u་

পডুিগি। বুদ্ধদেব তাহার শিষ্য মণ্ডলীকে আদেশ করিলেন, কেহ মেন তাহার উপদেশ সংস্কৃত ভাষায় না। অনুবাদ করে; করিলে সে অপরাধী হইবে। মুসলমান শাসনের দিনে উর্দু ও ফারণী ভাষার দিন হইল। আবার ইংরাজের আমলে ইংরাজীরই প্রচলন। মুসলমানের ভাষা ইংরাজের ভাষা ও পূর্বের সংস্কৃত আসিয়া বাঙ্গালা ভাষার পররুহ হইল। যুরোপেও দেখা যায়, রোমান ধৰ্ম্মযাজকদিগের প্ৰভূত্বকালে ল্যাটিন ভাষার প্রচলন ছিল। রোমান যাজকদের আধিপত্য শেষ হইল, ল্যাটিন ভাষাও বিলুপ্ত হইল। এখন আমাদের ধৰ্ম্মেও যেরূপ স্বেচ্ছাচার, ভাষাতেও সেইরূপ স্বেচ্ছাচার পরিদৃষ্ট হইতেছে। : : পূর্বে এরূপ ছিল না। তাই সমস্ত প্রাচীন কবিদিগের কাব্যের আখ্যান বস্তু ছিল পৌরাণিক। তাহদের স্বীয় অসাধারণ এমনস্থিতার ও কৌশল-কলাময়ী উদ্ভাবনশক্তির বৈচিত্ৰগুণে স্ব স্ব কাব্যকে তাহারা অভিনব-কদর করিয়াছেন। এই অভিনবতা ও সৌন্দৰ্য্যকেই কবির মৌলিকতা বলে। এই মৌলিকতার জন্য কালিদাস, ভবভূতি, ভারবি, বিদ্যাপতি, চণ্ডীদাস, ঘনরাম, কবিকঙ্কন, ভারতচন্দ্র যেন অন্যাপি জীবিত ;—কিন্তু সে দিনের রঙ্গলাল ও বিহারীলাল আজি সাস্ত্ৰ বিস্মৃতিতে অন্তৰ্হিত।

এই ধৰ্ম্মবিহীন, ধাতুবিহীন ও ভক্তিবিহীন সাহিত্যই এখন আমাদের বঙ্গসাহিত্য । পুর্বের মত কবি ও লেখক এখন আর কয়েকজনমাত্রে সীমাবদ্ধ নহে। সকলেই এখন নুনাধিক সাহিত্যিক। সকলেই ইংরাজী শিক্ষার বিচিত্র কুহকে মন্ত্ৰমুগ্ধ। ইংরাজী ধরণে লেখা না হইলে কেহ পড়িবেন না। এই জন্য লেখকগণও রচনা কাটাইতে ও যশোলাভ করিতে-স্বেচ্ছায় হউক অনিচ্ছায় হউক।-ইংরাজী ধরণেরই পক্ষপাতী। কাষেই এতদিনের সে সনাতন ধাতু ও সাহিত্যের মৰ্ম্মস্পর্শিনী ক্ষমতা তিরোহিত হইয়াছে। যাহা হইয়াছে ও হইতেছে, তাহা যে শুধু বর্তমানের জন্যই লিখিত, এ সিদ্ধান্তে সহজেই উপনীত হওয়া যায়। বাঙ্গালার কোন কাব্য বা রচনা নূতন প্ৰকাশিত হইলেই আমরা তাহাকে সেই শ্রেণীর ইংরাজী লেখার সঙ্গে এমন কি বাঙ্গাল কবিকেও ইংরাজ কবির সহিত তুলিত করি। এই অতুলন। তুলনাশক্তির বিচিত্র উর্বরতার ফলেই আমরা মনস্বী }বঙ্কিমচন্ত্রে স্কটকে পাইয়াছি; নবীনচন্দ্ৰে বায়ারণকে পাইয়াছি; হেমচন্দ্রে টেনি- । সনের ও ডাণ্টের আভাস পাইয়াছি; মধুসূদনে মিলটন পাইয়াছি ; ও রবীন্দ্র‘নাথে শেলীকে পাইয়াছি। আমরা মেঘনাদ বধে “প্যারাডাইস লষ্টের গন্ধ পাই, , iDiBiDBB BBDDBDBDS DDB BggSiDDBDBDBD DDBBB DBDDDB S