পাতা:আশুতোষ স্মৃতিকথা -দীনেশচন্দ্র সেন.pdf/১২৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RRV) আশুতোষ-স্মৃতিকথা শিক্ষামন্ত্রী ফজলুল হক সাহেব পোর্ট-কমিশনারদের সভাপতিকে আশুতোষের শব-বাহনের জন্য একখানি স্পেশাল ষ্টীমারের ব্যবস্থা করিতে অনুরোধ করিয়া পত্র লেখেন। দুই ঘণ্টা হাওড়া ষ্টেশনে অপেক্ষা করার পর ‘ফেরি’-জাহাজ ‘বাক লাণ্ডে” বাহিত হইয়া শব্ব গঙ্গার অপর পারে আনীত হইল। সেখানে এক অভাবনীয় জনতা,-মনে হইল যেন একটা জন-মুণ্ডের সমুদ্র। গৱাক্ষ, অলিন্দ, গৃহশীর্ষ হইতে শত শত চক্ষু শব-দেহ একটিবার দেখিবার জন্য ব্যগ্র, নিৰ্ণিমেষ ভাবে প্রসারিত। হ্যারিসন রোড হইয়া যখন শব কলেজ স্কোয়ারে আনীত হইল, তখন মনে হইল—সেই প্রশস্ত স্থানে জনতা আর ধরে না। চৌরঙ্গী ও এসপ্ল্যানেডে যাইয়া শব-বাহকের ‘আরমি’ ও ‘নেভি’র দোকানের কাছে কিছুক্ষণ থামিয়া গীর্জার পশ্চিমদিকের পথে চলিলেন। হরিশ মুখাৰ্জী রোড ধরিয়া তাহারা রস রোডের ৭৭নং ভবনে আসিলেন, কিন্তু বাড়ীতে ঢুকিলেন না । তখনও বামা প্ৰসাদ কঙ্কালসার, শয্যাশায়ী,-পাছে মানসিক এই নিদারুণ আঘাতে র্তাহার। মূৰ্ছা হয়, এই আশঙ্কায় শব বাহির-বাড়ী হইতেই কেওড়াতলার শ্মশানে আনা হইল। বাঙ্গলার ভাগ্যাকাশের গৌরবোজ্জল সূৰ্য্য মধ্যাহ্ন-গগন হইতে কেওড়াতলার শ্মশানে অস্তমিত হইলেন,-সেদিন গঙ্গার গর্ভে বাঙ্গালীজাতি তাহদের দুলভ, অমূল্য রত্নটি বিসর্জন দিয়া দীন বেশে গৃহে ফিরিল । আশুতোষ মহাপ্ৰয়াণ করিয়াছেন,-পশ্চিম আকাশে প্রখর মাৰ্ত্তণ্ড ঢলিয়া পড়িয়াছে, রৌদ্র-দীপ্ত উজ্জল আকাশ হঠাৎ যেন আঁধার হইয়াছে, - স্মৃতির লালিমাটুকু বুকে করিয়া দিশ্বলয় আঁধার, আঁচলে মুখ ঢাকিতেছে। আমি কবি নহি,—এই মহাবিয়োগান্ত দৃশ্যের কারুণ্য ভাষায় বুঝাইব কিরূপে ? vefsÇX5Çg week-Eftal কেওড়াতলার শ্মশানে puhhima