পাতা:আশুতোষ স্মৃতিকথা -দীনেশচন্দ্র সেন.pdf/২৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


[ 8२ ] পাঁচিশ বৎসর পূর্বে বাঙ্গলা সাহিত্যে ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্বের আলোচনার একটা যুগ আসিয়াছিল। সেই শুভ সুযোগে অক্ষয়কুমার মৈত্ৰেয়, নিখিলনাগ রায়, রাখালদাস বন্দ্যোপাধ্যায়, কালীপ্ৰসন্ন বন্দোপাধ্যায়, রমাপ্ৰসাদ চন্দ্ৰ প্ৰভৃতি মনীষিগণ ইতিহাসউদ্ধারে ব্ৰতী হন। তাহারই ফলে আমরা সিরাজউদ্দৌলা, মীরকাসিম, গৌড়রাজলেখমালা, মুর্শিদাবাদ-কাহিনী প্রভৃতি মূল্যবান গ্ৰন্থ পাইয়াছিলাম। ইহার পর গত ছাব্বিশ-সাতাশ বৎসুরের মধ্যে বিক্রমপুর, ঢাকা, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, খুলনা, যশোহর প্রভৃতি জেলা ও পরগণার কয়েকখানি সুলিখিত ইতিহাস প্ৰকাশিত হইয়াছে। বৰ্ত্তমান যুগ-বিজ্ঞানের যুগ। এই বিজ্ঞান-সম্মত ঐতিহাসিক আলোচনার দিনে বাঙ্গলার বহু কৃতী সন্তান ঐতিহাসিক গবেষণায় আত্মনিয়োগ করিয়াছেন তাহারি ফলে আজ আমরা বৃহত্তর ভারতের কথা শুনিতেছি, মহেঞ্জোদারোর লুপ্ত ইতিহাস বাঙ্গালী ঐতিহাসিকের কৃতিত্বে জানিতে পারিতেছি,-পাহাড়পুরের প্রাচীন বৈভব আমাদের দৃষ্টিগোচর হইয়াছে এবং “বৃহৎ বঙ্গের”* ন্যায় একখানি সুবৃহৎ গ্রন্থে বাঙ্গলার ইতিহাস ও সামাজিক জীবনের কথা জানিতে পারিয়াছি । ইতিহাস শুধু তারিখ দ্বারাই বিবেচিত হয় না বা লিখিত হইলে চলে না। ইতিহাসের প্রাণ নিহিত রহিয়াছে ঘটনাবিন্যাসে, তথ্যসংগ্ৰহে, চিত্র-শিল্প, ভাস্কৰ্য্য প্ৰভৃতির এবং রূপকথা, সামাজিক রীতি-নীতি, আচার-ব্যবহার, পুথিপত্র ও জনগণের বিবিধ জীবনের গতি ও সজীবতার মধ্যে। কত মহাজন, কত পুণ্যতপা বাঙ্গালী পুরুষ ও নারী ধৰ্ম্ম, সাহিত্যের মধ্যে, মঠ ও মন্দির রচনায়, পল্পী-সঙ্গীত ও ছড়া-পাচালী এবং ধৰ্ম্মানুষ্ঠানের দ্বারা তঁহাদের যুগের অনেকখানি ইতিহাসের মালমসলা রাখিয়া গিয়াছেন- সে সমুদয়ের সুনিয়ন্ত্রিত আলোচনার দ্বারা তাহাকে সজীব করিয়া তোলাই হইতেছে। ইতিহাসের কাজ । প্ৰত্যেক দেশেই তাহাঁই হয়। বাঙ্গলায় অনেক বৃহৎ পল্লীর লুপ্তপ্ৰায় সরোবর* তাঁটের ভগ্ন পাষাণ-সোপান বা ইষ্টক-সোপান বা তীরের তরু-লতা সমাচ্ছন্ন জীর্ণমন্দিরে গ্রথিত দুইপংক্তি সংস্কৃত বা বাঙ্গলা শ্লোক এখন অমূল্য তাঁর্থ প্ৰকাশ

  • রায়বাহাদুর শ্ৰীদীনেশচন্দ্র সেন, বি-এ, ডি-লিট প্রণীত । দুই খণ্ডে, ১৪ • • পৃষ্ঠায় সম্পূর্ণ। মূল tLBi iiL gS DSS BDBDBD DDBSDB DuDBD BDDBBDS 兽