পাতা:ইংলণ্ডের ডায়েরি - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


3. ইংলেণ্ডের ডায়েরি g প্রদান করিতে ও নবজীবনপ্রাপ্ত ভারতেঁর ধর্মক্ষেত্র হইতে পরিবে। যে কয় বিষয়ে ভারতবর্ষের অধোগতি হইয়াছে, তাহা এই :- : (ক) মানবাত্মার স্বাধীনতার লোপ-ফল, উচ্চ জাতির প্রভাব ও প্রজাদের দাসত্ব। // (খ) বিবেকের অক্ষতি—ফল, সামাজিক কুরীতি ও দুনীতি। -- (গ) জীবনে বৈরাগ্য-ফল, আধ্যাত্মিক ও সামাজিক জড়তা। (ঘ) অনুষ্ঠানাবদ্ধ ধমৰ্পভাব। প্ৰথম তিনটি ঘোর ব্যাধির ন্যায় আমাদের সামাজিক জীবনের অন্তস্তলে প্রবিষ্ট হইয়াছে ও তাঁহাকে অন্তঃসারশূন্য করিয়া ফেলিয়াছে। এই স্থানে পরিবর্তন উপস্থিত করিতে না পারিলে, বাহিরের কোন সংস্কার দাড়াইবার ভূমি পাইবে না। আমাকে ভবিষ্যতে প্রচার করিবার সময়, এই কয়টি প্রধানরূপে লক্ষ্যস্থলে রাখিতে হইবে। ইহার মধ্যে মানবাত্মার স্বাধীনতা ও বিবেকের স্ফর্তি এই দুইটি ব্ৰাহ্মসমাজে প্ৰস্ফুটিত হইয়াছে। প্ৰথম অক্ষয়বাবু (১) এবং মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ, তৎপরে কেশববাবু, এ বিষয়ে অনেক সাহায্য করিয়াছেন। এক্ষণে এই দুইটিকে মলিন করিবার দিকে যে কিছু কিছু গতি হইতেছে, তাহাকে বাধা দিতে হইবে। জীবন বিষয়ক বৈরাগ্য-দেশের জ্ঞানী, অজ্ঞ, বিশেষত অজ্ঞদিগের মনে এই বৈরাগ্যের ভাব বদ্ধমূল। বহু শতাব্দীর পরাধীনতা, জাতিভেদের (১) অক্ষয়কুমার দত্ত-মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রতিষ্ঠিত “তত্ত্ববোধিনী সভা’র সংস্পর্শে আসিয়া ব্ৰাহ্মধ্যম অবলম্বন করেন এবং দক্ষতার সহিত। ১২ বৎসরকালে “তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা’র সম্পাদকতা করেন ; তাৎপরে বিদ্যাসাগরের সহায়তায় কলিকাতা নর্মাল স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পদে নিযুক্ত হন। তিনি সুপণ্ডিত ও সু-সাহিত্যিক ছিলেন এবং ধর্ম নীতি ও বিজ্ঞান বিষয়ে বহু মূল্যবান গ্ৰন্থ এবং সন্দর্জাদি রচনা করেন। ইনি মুকবি সত্যেন্ত্ৰনাথ দত্তের পিতামহ ছিলেন । ১