পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/১০১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পঞ্চদশ পরিচ্ছেদ । సికి রাত্রি এক প্রহর অতীত হইয়া হই প্রহরের জাম্বল হইল ; পৌরজনের স্ব স্ব গৃহে প্রস্থান করিলেন । শয়ন করিয়া অৰধি ইন্দ্রচন্দ্র শয্যাকণ্টকির ন্যায় একবার এপাশ একবার ওপাশ করিভেছিলেন ; ক্রমে অসহ বোধ হইল,—উঠিয়া বসিলেন । সাবধানে দ্বারের অর্গল মুক্ত করিয়া গৃহের বাহিরে অসিলেন ; কেহ কোথাও জাগিয়া আছে কিনা যথাসাধ্য পরীক্ষা করিয়া পুনরায় গৃহ প্রবেশ করিয়া নিত্রিত নববধূর নাসিকার উপরে হস্ত স্থাপিত করিয়া পরীক্ষা করিলেন । পরীক্ষা শেষ হইলে গৃহ বহিস্কৃত হইয়া অতি সাবধানে বাহির হইতে শয়ন গৃছের স্বার বন্ধ করিয়া ধীরপাদবিক্ষেপে সোপান অবতরণ করিয়া একেবারে অন্দরসংলগ্ন উদ্যানে উপস্থিত হইলেন এবং লম্ফত্যাগে তথাকার প্রাচীর উল্লম্ফন পূৰ্ব্বক বাটীর বাহির হুইলেন । পৌরজনেরা বা বালিকা নববধূ এ সকল কিছুই জানিতে পারিল না । সেই গভীর নিশায় ইন্দ্রচন্দ্র একাকী মাঠের উপর দিয়t চলিয়াছেন । মনে ভয়ের লেশ মাত্র নাই। মাঠ পার হইয়া ইন্দ্রচন্দ্র রাজকুমারের বাটীর পশ্চাতে,-ঠিক সরস্বতীর গৃহের পশ্চাতে—দাড়াইয় গৃহভিত্তিতে অঙ্গুলী দ্বার সাঙ্কেতিক শব্দ করিলেন ; তৎক্ষণাৎ সেইরূপ প্রতিশব্দ হইল। ইশ্রচন্দ্র তথা হইতে সদরদ্ধারে আসিয়া দাড়াইলেন। এক স্ত্রীমূৰ্ত্তি আসিয়া অতি ধীরে ধীরে কবাট খুলিয়। দিল । ইন্দ্রচন্দ্র বাহির হইতেই জিজ্ঞাসা করিলেন ‘সরস্বর্তী ?* প্রভু্যত্তর হইল “ছ” ইন্দ্রচন্দ্র অগ্রসর হইয়। সরস্বতীর হস্ত ধরিলেন ; কি ৰলিবার জন্য মুখের কাছে মুখ লইয়া গেলেন ; কিন্তু বোধ হয়, সরস্ব জীৱ । R