পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/১০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


To so. ਵੋਲ਼ਝਲ਼ s এখন সরস্বতীই একমাত্র অবলম্বন ; দয়া করিয়া মুখে এক বিন্দু জল দিলে তবে ছায়াময়ীর মুখে একটু জল পড়ে । এইরূপ আরও তিন মাস কাটিল । সরস্বতী এখন আর সে সরস্বতী নাই । দেহের পারিপাট্য যথেষ্ট বুদ্ধি হইয়াছে ; বর্ণ পূৰ্ব্বাপেক্ষা অনেক উজ্জ্বল হইয়াছে, মুখে সৰ্ব্বদা হাসি লাগিয়াই আছে ; সঙ্গে সঙ্গে, আর একটা বিষয়ের উন্নতি হইয়াছে, দেহাবয়বের সঙ্গে উদর কিঞ্চিৎ স্ফীত হইয়াছে। সৰ্ব্বদা অলস ভাব, মুখে অবিরাম জল উঠে, আঠারে অনিচ্ছা ইত্যাদি জুই একটা উপসর্গও জুটিয়াছে। মাত্র যথায় পাচিকার কার্য্য করেন তথা হইতে কিছু কিছু পাঠাইয় দেন,তাহা দ্বারা নিজের,রাজকুমারের দুইটী শিশু পুত্রের, এবং ছায়াময়ীর সাহারাদির ব্যয় কোন রূপে নিৰ্ব্বাহ হয়, ইহাই সাধারণে প্রকাশ ; কিন্তু ছায়। মন্ত্রীর মন তাহ বিশ্বাস করে না ; আর এক কথা-সরস্বতীকে দেখিয়া প্রতিবেশিনীগণ মুখ মুচুকাইয়া হাসে ; অনেকে ঠারে ঠোরে দুই একটা কথা বলে, এই জন্য সরস্বতী আর বড় একটা বাটীর বাতির হয় ন । রাজকুমার নিরুদেশ, ছায়াময়ী শয্যাশায়িনী, মা তা বাটতে নাই ; মুক্তরাং সরস্বত্তীর যাছা কিছু মনে উদয়tহইতেছে, অবাধে তাহাই সম্পন্ন করিতেছে । ইন্দ্রচন্দ্র প্রতি রাত্রেই সরস্বতীর গৃঙ্গে মাপন করিতেছেন,—আর পূৰ্ব্বের ন্যায় বাহির হইতে সঙ্কেত করিতে হয় না,–একেবারে বাটির ভিতর আসিয়া শয়ন গুহের দ্বারে দাঁড়ান । জমিদার চন্দ্রশিখর চট্টোপাধ্যায় মহাশয় পালিত পুত্রের বিবাহ দিয়াই নিশ্চিস্ত ; মনে মনে বিশ্বাস ইন্দ্রচন্দ্র ভাল হইয়াগিয়াছে। ভিতরে ভিতরে ইন্দ্র চন্দ্র ষে কি করিতে