পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কলিকায় ফু দিতে দিতে সেধে গোয়ালাকে সঙ্গে লইয়া বৈঠক । খানায় প্রবেশ করিল । হরিচরণ বৈঠকখানায় প্রবেশ করির সট কার উপর কলিকা বসাইয়া দিয়া প্রস্থান করে এমন সময়ে চট্টোপাধ্যায় মহাশয় হরিকে জিজ্ঞাসা করিলেন, “কৈরে, সেধোকে ডেকে দিলি ন!” - হরিচরণ উত্তর করিল, “অজ্ঞে ঐ দরজার কাছে দাড়িয়ে । আছে।” - - চট্টোপাধ্যায় মহাশয় দরজার দিকে দৃষ্টিপাত করিবামাত্র সেধো গোয়াল এক দীর্ঘ প্রণাম করিয়া ভেউ ভেউ শব্দে কঁাদিতে আরম্ভ করিল। . - . কান্না দেখিয়া চট্টোপাধ্যায় মহাশয় জিজ্ঞাসা করিলেন, “কিরে সাধুচরণ কি হয়েছে। কাদচিস কেন ?” সাধুচরণের মুখে কোন কথা নাই, কেবল বাদে আর ফোং ফোৎ করে নাক ঝাড়ে। অনেক পেড়াপিড়ির পর সাধুচরণের মুখে বোল ফুটিল। বলিল, “দোহাই কর্তা মহাশয় এর বিচার আপনাকেই কৰ্বে হবে।” । ૬ . কৰ্ত্তামহাশয় বিধম গোলে পড়িলেন। বলিলেন, “আগে কি হয়েচে বল, তবেতো তার বিচার করবো। খোকাৰাৰু তোর গাছে জাম পেড়েছে বলে কঁদিচিস কি ?” . হ। অজ্ঞে তিনি আমার গাছের আম পাড় বেন কেন ? র্তার অভাব কিসের ” চ। তবে কি হয়েছে ? : হ। আজ্ঞে আমি স্থখনিয়ে হার্টে যাচ্ছিলাম আর থোকাবাৰু একটা ইট মেরে আমার দ্বধ эъ ছাড়িটা ভেঙ্গে निएलन ।” সাধুচরণ আবার কাদিতে আরম্ভ করিলেন। ।