পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/১৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


੨੭੨ ... ਝੋਲ਼ ! কি আর জুটবে না” বলিয়া মহামায়। সরস্বতী ও তাহার শিশু পুত্রকে লইয়। যাইবার জন্য শ্বশ্ৰঠাকুরাণীর নিকট আবদার। করিতে লাগিল । লীলাবতী বিধবা পুত্রবধূর আবদার এড়াইতে না পারিয়া সরস্বতীকে বলিলেন ‘‘আয় সরস্বতী আর তোর ভিক্ষা করে কাজ নাই, ভগবান যদি আমাদের দুঃখ ঘুচান তোরও দুঃখ ঘুচাবেন ।” সরস্বতী ভিক্ষালব্ধ চাউলগুলি পরিত্যাগ করিয়া] উঠিয়া দাড়াইল । লীলাবতী বধূকে লইয়া যে গাড়িতে আসিয়াছিলেন লোকের ভিড় প্রযুক্ত তাহা ঘাট পৰ্য্যস্ত আসিতে ন পারায় জগন্নাথদেবের দরজায় দাড়াইয়াছিল। মহামায়। সরস্ব তীর পুত্র ক্রোড়ে অগ্ৰে গিয়া তাহাতে আরোহণ করিল ; মাতা আসি তেছে কি না দেখিবার জন্য বালক গাড়ির দরজায় মুখ বাড়াইয়াছিল, লীলাবতী তৎপশ্চাৎ তাহার মাত গাড়িতে । উঠতেছে বালক তাহাও দেখিল। কিন্তু দেখিল মাতার রিক্ত । হস্ত; আর থাকিতে পারিল না বলিল “ওম চাল পড়ে রইল যে ?” “থা ক ওতে কাজ নাই’ বলিয়া মহামায়। পুনরায় বালকের মুখচুম্বন করিল। দাস দাসীগণ গাড়ির পশ্চাতে এবং উপরে উঠিয়া বসিল । হেটু টেক্‌ টেক্ শব্দে চাবুক ঘুরাইয়া চালক ঘোড়ার পৃষ্ঠে সপাৎ করিয়া এক ঘ চাবুক বসাইয়া দিল জানের চক্র এক পাক ঘুরিল । সরস্বতীর পাশ্বে বলিয়া আর এক মাগী ভিক্ষা করিতে ছিল সে এতাবৎ কিছু বলে নাই, সতৃষ্ণ নয়নে সরস্বতীর ভিক্ষালব্ধ চাউল গুলির প্রতি দৃষ্টি করিতে ছিল, ষেই দেখিল গাড়ি চলিল অমনি আপনার চাউলের সঙ্গে সরস্বতীর চাউল গুলি মিলাইয়া দিল। ভবের বাজারের ব্যাপারই এই ৷ -