পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দশম পরিচ্ছেদ । も空 বেল তিন প্রহর পর্য্যস্তু অনাহার তাহার উপর খামবাবুর এই উক্তি শুনিয়া রাজকুমার মনে মনে একটু বিরক্ত হইল, বলিল “মনে আর করবে। কি মশায়, আপনার আমাকে রাজা করে দিচ্ছিলেন, কিন্তু রাজা যে অtজ না খেতে পেয়ে মারা যায়।’ শুrমবাবু আশ্চৰ্য্য হইয়া বলিলেন, “কেন আমার যারে যা দেবার তাতে আমি দিয়েচি ** ‘সেকি আমায় একদিন পাচ, তার পর লেখাপড়ার দিন পঞ্চাশ অীর একদিন মাষ্টীর মশায় বার টাকা দেন । এই দিয়ে কি আমাকে রাজা করছিলেন ?” বলিয়া রাজকুমার পুৰ্ব্বাপেক্ষণ আরও একটু বিরক্তি ভাব প্রকাশ করিল। শু । না হে না ; মাষ্টার মহাশয়ের হাতে তোমাকে দেবার জন্য আরও কিছু দেওয়া হয়েচে । রাজ। অামি আর কিছুই পাই নাই, আর মাষ্টার মহাশয় এখানে নাই, যে র্তার কাছে থেকে আদায় করে নেবো । শু্যাম । এলেই পাৰে তার আর কি ; তোমার টীকা যাবে কোথা । রাজ । অtঞ্জ যে আমি না থেতেপেয়ে মারা যাই তার কি বলুন । আজ আমাকে কিছু দিন,পরে তার কাছ থেকে নেবো । শু্যাম । আজ আমার কাছে এক পয়সা ও নাই । রাজকুমার খামবাবুর কথায় একেবারে অগ্নিশৰ্ম্ম্য হইয়। উঠিল। বলিল, “এসব কাজে নাই বললে চলে না। আজ আমাকে কিছু দিতে হবে। কতবড় কাজটা করে দিয়েছি ভাতে। মনে আছে , আপনি তে। তার ছেলে মানুষ নন ?” রাজকুমারের জোর জোর কথা শুনিয়া হামবাবুও একটু