পাতা:ইন্দ্রচন্দ্র.pdf/৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


వ8 ੋਲਣ ! ‘’

চক্ষের মাথা থাবে, তাতে হাত দিতে গুয়ে হাত দিৰে’ ইত্যাদি বচন বলিয়। পরামশিক চীৎকার করিতে লাগিল । বর কন্য। আপাদমস্তক নূতন বস্ত্রাবৃত হষ্টয়া শুভদৃষ্টি কৰিল । লেখকের রুচি মার্জিত নয় রলিয়া এষ্ট খানে একটা কথা ৰলিতে সাহস করিতেছে । শুভদৃষ্টি তো হইল,-কিন্তু প্রাপে প্রাণে হইল কি ? বোধ হয় না ;–কেন না ইন্দ্র চন্দ্রের মুখ মাম, স্ফ প্তি নাই; যেন এ সকল তাঙ্গার ভাল লাগিতেছেন না । খমাপত্তি স্থলে অনেকে হয় তো বলিবেন, ইন্দ্র চন্দ্র সমস্ত দিবস উপবাসী, সুতরাং মুখ শুষ্ক, মনে স্ফপ্তি না থাকিতে পারে। আমি কিন্তু তাহ স্বীকার করি না ; এই সমস্ত দিবস উপবাসের পর বোয়ের মুখ দেখিলে স্বতঃই মনে যে এক স্বগীৰ ভাবের উদয় হয়—সম্মুখে যে আর এক জগতের দ্বার উন্মুক্ত হয়-প্রাণ যে কি জানি কি হইয়া যায় গো ! মুগ শুষ্ক, অনাহার জন্য কষ্ট কিছুই অনুভব হয় না যে গো ! তোমরা কি বলিতেছ ? অামার বোধ হয়, সাতপাকে যে কত মজ-বে। যে কি মজার জিনিস ইন্দ্রচন্দ্র তাহ বুঝিতে পারিল না ; হয় তো এজন্মে পারিবে না। " - স্ত্রী আচারের পর কন্যাকৰ্ত্ত সীলঙ্কার স্বস্ত্রা কন্যা বরকে সম্প্রদান কৰিলেন । কন্যাকৰ্ত্তার পুরোহিত কন্যা কৰ্ত্তাকে ৰ লাইলেন “আমি দান করিঙেfছ” বরের পুরোহিত বরকে ৰলাইলেন"আমি গ্রহণ করিক্তেfছ” বর মন্ত্র বলিল-“ও যদেত্তং शमग्र१ एठद ठप्रक्षु श्रम प्र६ भभ, शनेि प्रश झलङ्ग३ भभ प्ठम छ झनग्र६ ভৰ। প্রানৈস্তে প্রাণান সন্দধামি অস্থিভিরস্থানি, মাংসৈমাংসানি খচা ত্বচম্ " ক নাও ধ্রুব নক্ষত্রকে সাক্ষী করিয়া ৰশিল—5 এৰমসি ধ্রুবাহুংপতিকুলে ভূয়াসম ।