পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰথম ভাগ, ৩য় সংখ্যা । তৃতীয় পৰ্য্যায়। २७०४, यांगी । ਢਿਟਸ feta চারি শত বৎসর অতীত হইল, গৌড়ের পাঠান সিংহাসন যে নরপতির । পবিত্ৰ স্পর্শে ধন্য হইয়াছিল, তাহার নাম এককালে বিশাল বঙ্গভূমির সর্বত্ৰ । গীত হইত। কি পূৰ্ব্ববঙ্গ, কি পশ্চিম বঙ্গ সকল স্থানেই সেই মহিমাশালী । মহানুভব হোসেনসাহের পুণ্য নাম আবালবৃদ্ধ বনি তার কণ্ঠ হইতে ধ্বনিত হইয়া দিগদিগন্তে ছড়াইয়া পড়িত। বঙ্গ কবিগণ সাহার নাম "আপনাদের কাব্যের সহিত বিজড়িত করিয়াছেন, বাঙ্গলার অনেক বিশাল দিঘী যাহার নামাঙ্কিত পাষাণীবদ্ধ হইয়া রহিয়াছে, বাঙ্গালার অনেক বিস্তাণ পথ শত শত বৎসর শয়ন করিয়া যাহার নাম স্মরণ করাইয়া দিতেছে, এবং গৌড়ের ধ্বংসাবশেষের মধ্যে অনেক প্ৰাচীন কীৰ্ত্তি মস্তক উন্নত করিয়া যাহার নামের ঘোষণা করিতেছে, তিনি বাস্তবিকই যে এককালে সকলের স্মরণীয় ছিলেন, সে কথা বোধ হয়। নূতন করিয়া বলিতে হইবে না। প্রকৃত প্ৰস্তাবে হোসেনসহ তৎকালে হিন্দু মুসলমান উভয় জাতিরই সম্মানের পাত্র ছিলেন। তিনি হিন্দু মুসলমানকে যেরূপ সমভাবে দেখিতেন, দুই এক জন মুসলমান নরপতি ব্যতীত কেহই সেরূপ সমতা দেখাইতে পারেন নাই। তাই আজিও প্রাচীন বঙ্গসাহিত্য DD D LL SSS SDBDS YBBD BBDDY S t BBDBB DBDD দিতেছে। দুই এক শত বৎসর পূর্বে গৌড়ে যে পাঠান রাজ্যের প্রতিষ্ঠা