পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১১৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


) epY ख्रिहजिक क्रिया প্রচারের জন্য চেষ্টা করিতেছিলেন, কিন্তু মহাপ্রভুর আকর্ষণে হিন্দু মুসন্মান উভয় জাতিই আকৃষ্ট হইয়া হরিনামের স্রোতে ভাসিতে আরম্ভ করে। হোসেন সাহা প্ৰথমতঃ আপন কৰ্ম্মচারীদিগের পদ পরিত্যাগে বিরক্ত হইয়াছিলেন। বটে, কিন্তু যখন দিন দিন নব বৈষ্ণব ধৰ্ম্ম যুগ ধৰ্ম্মের ন্যায় হিন্দুমুসন্মানকে আকর্ষণ করিতে থাকে, তখন তিনি নিজেই তাহাতে আনন্দ লাভ করিতেন। তিনি মহাপ্ৰভু চৈতন্যদেবকে অত্যন্ত শ্ৰদ্ধা ও সমাদর করিতেন। মুসন্মান সাধু ও ফকীরের ন্যায় মহাপ্রভুরও প্রতি তিনি সন্মান প্ৰদৰ্শন করিতেন। তিনি নিজে মুসল্মান Aধৰ্ম্মাবলদী হইলে ও হিন্দুদিগের ধৰ্ম্মের প্রতি কখনও অনাদর করিতেন না। কাজেই তাহার এরূপ ঔদার্য্যে যে হিন্দু জনসাধারণ সন্তুষ্ট হইবে, তাহাতে বৈচিত্ৰ্য কি ? ফলতঃ হোসেন সাহার এরূপ ঔদাৰ্য্য ইতিহাসে বিরল বলিয়াই বোধ হয় । হোসেন সাহ বঙ্গসাহিত্যেরও উৎসাহব্বদ্ধক ছিলেন। তাঁহার সভায় হিন্দু মুসন্মান এক হইয়া শাস্ত্রের আলোচনা করিতেন। বিজয়গুপ্তের পদ্মপুরাণে ও পদাবলীতে হোসেনসাহের নামোল্লেখ দৃষ্ট হয়। * তাহার অনুকরণ করিয়া তাহার কৰ্ম্মচারিবগাঁও ({ান সাহিত্যের উৎসাহ প্ৰদান করিতেন । তন্মধ্যে কবীন্দ্র পরমেশ্বর রচিত পরাগলী ভারত, বা মহাভারত তাহার সেনাপতি পরগাল, খারা ঐ রূপ সাহিত্য প্রীতির পরিচয় দিতেছে। +

  • জীযুত হসন, জগতভূষণ, সোহ ও রস জানে।”

‘নৃপতি হুসেন সাহ হএ মহামতি । পঞ্চম গৌড়েতে ষায় পরম সুখ্যাতি । অস্ত্ৰ শৰে সুপণ্ডিত মহিমা অপারে। কলিকালে হরি হৈল কৃষ্ণ অবতায় । नृ°उि हंगानन मांश् cोcद्र श्रेषन् । তান হক সেনাপতি হওস্ত লস্কর । 행 সুবৰ্ণ বসন পাইল অশ্ব বায়ুগতি । লস্করী। বিযয় পাই অাইবন্ত চলিয়া । 555मि 5कि cगंज, हब्रविद्ध हt a BB uHBDB BDB DK DBBS BDDD SS BBD DBD DD DBDDB DuDL S ( দীনেশচন্দ্ৰেয় বঙ্গভাষা ও সাহিত্য, পৃ-১৩৯-০০ )