পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>之 ঐতিহাসিক চিত্ৰ । জল হইতে মাটুিসের ও স্থল হইতে কার্ভালোর আক্রমণে তাহারা সনদ্বীপ পরিত্যাগ করিয়া চলিয়া গেল। সনদীপ কার্ভালো ও মাটুসের হস্তে পতিত ” হইল । কেদার রায় তাহাদের হন্তেই সনদ্বীপের শাসনভার অর্পণ করিলেন । এইরূপে সনদ্বীপ আবার কেদার রায়ের রাজ্যভুক্ত হইল। কার্ভালো তাহার অধীন শাসনক ধ্রু রহিলেন । এই সময়ে মেরা জংগী আরাকানের সম্রাট ছিলেন, তিনি সেলিম সা উপাধি গ্ৰহণ করিয়াছিলেন ।:চট্টগ্রাম পৰ্য্যন্ত তাহার অধিকারে ছিল। তাহার ও অধীনে অনেকগুলি পটুর্গাজ অবস্থিতি করিত। কিন্তু ক্রমে তাহারা স্বাধীনতা~ { অবলম্বন করিবার ইচছা করে । উহাদের মধ্যে ফিলিপ ডি ব্ৰিটো প্ৰধান । বঙ্গোপসাগরে পটুর্গ জদি গোর প্রাধান্য বিস্তুত হইতেছে দেখিয়া আরাকানরাজ তাহাদের দমনের জন্য ইচ্ছুক হইয়াৰ্ণছলেন । সঙ্গে সঙ্গে তাহার বাঙ্গালা আক্ৰমণের ও ইচ্ছা ছিল । তিনি কার্ভালোর হস্তে সনদ্বীপের শাসনভার অপিত হইয়াছে শুনিয়া তাহাকে দমন ও সনদ্বীপ স্বীয় রাজ্যভুক্ত করিবার জন্য প্ৰয়াসী হইলেন । তিনি দেড়শত খানি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রণতরী ও কামান সজ্জিত বৃহৎ( রণতরী পটুগীজদিগের বিরুদ্ধে সনদ্বীপে পাঠাইয়া দিলেন। কার্ভালে৷ সেই সংবাদ কেদার রায়ের নিকট পাঠাইলে তিনি আপনার একশত খানি কামান ও বন্দুক সহিমত কোষ নৌকা তাহার সাহায্যের জন্য শ্ৰীপুর হইতে সনদ্বীপে প্রেরণ করেন। বাঙ্গালীর পরিচালিত সেই নৌকাসমূহ পদ্মা ও সাগর কম্পিত করিয়া সনদ্বীপে উপস্থিত হইল। তাহদের সাহায্য পাইয়া কার্ভালো বিপুল বিক্ৰমে সেলিম সার রণতরী সমূহ আক্রমণ করিলেন। বাঙ্গালী ও ফিরিঙ্গীর সহিত মাগদিগের ভয়াবহ যুদ্ধ বাধিয়া গেল। বন্দুক ও কামানের ধূমে গগনমণ্ডল আবৃত হইয়া উঠিল। তাহাদের গর্জনে নীল সমুদ্র মুহুমুহু কম্পিত হইতে লাগিল। এই যুদ্ধে বাঙ্গালী ও ফিরিঙ্গী অদ্ভুত বীরত্ব দেখাইল । মগের অবশেষে পরাজিত হইয়া গেল। তাহাদের ১৪৯ খানি রণতরী কার্ভালোয় হস্তে পতিত হইল। সনদ্বীপ কেদার রায়েরই রাজ্যভুক্ত থাকিল। যে সময়ে কার্ভালোর সহিত সেলিম সার সৈন্তগণের জলযুদ্ধ হইতেছিল,