পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১৭৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


झांबू शें । እ ¢ እor গণের সহিত দরবার-ভূমিতে উপস্থিত হইলে, খানখানান অদ্ধাপথ হইতে প্ৰত্যুদগমন করিয়া তঁহাকে আনিতে গেলেন। দায়ুদ কটিদেশ হইতে তরবারি উন্মোচন করিয়া খানখানানকে তাহ প্ৰদান করিয়া কহিলেন, “যখন হইতে আপনার ন্যায় ব্যক্তি আহত হইয়াছেন, তখন হইতে আমি যুদ্ধে ক্লাস্তি অনুভব করিতেছি।” খানখানান তরবারি লইয়া নিজের এক অনুচরের হস্তে প্ৰদান করিলেন, এবং দায়ুদকে সসন্ত্রমে আনিয়া আপনার আসনের পাশ্বে উপবেশন করাইলেন। তাহার পর মিষ্টান্ন প্ৰভৃতি গ্ৰহণের ব্যবস্থা হইল। অবশেষে সন্ধিপত্র স্বাক্ষরিত হইতে আরম্ভ হয়। দায়ুদ শপথসহকারে বলিলেন যে, তিনি আর কখনও বাদাসাহের বিদ্রোহাচরণ করিবেন না, এবং চিরদিনই তাহার অধীনতা স্বীকার করিবেন। খানখানান তাহাকে এক রত্নখচিত তরবারি প্রদান করিয়া বলিলেন যে, “তুমি যখন বাদাসাহের অধীনতা স্বীকার করিতেছ, তখন তোমার সাহায্যের জন্য এই তরবারি প্রদত্ত হইল, এবং DB DBDBBBB BD SDBBBD DDDD KEEK SKD DBBDBDOO SSSSSSS S DBDDD পর তিনি নিজ হস্তে দায়দকে তরবারি পরাইয়া দিলেন। অতঃপর দরবার ভঙ্গ হইল। এই সন্ধির পর মুনিম খা টাড়া অভিমুখে অগ্রসর হন। তাহার অনুপস্থিতিতে ঘোড়াঘাটের আফগানগণ মাজানান খাকে বিতাড়িত করিয়া রাজধানীর নিকট পৰ্যন্ত অগ্রসর হইয়াছিল, এবং গৌড়র্গ অধিকার করিয়া বসে। কিন্তু খানখানানের উপস্থিতির সংবাদ পাইয়া তাহারা তথা হইতে °व्ाझन्म कद्रिgङ दाक्षा ठूग्न । যে সময়ে মুনিম খা বাঙ্গালার সুবেদার নিযুক্ত হইয়া আসেন, সে সময়ে টাড়া বাঙ্গলার রাজধানী ছিল, উহা পূর্বে উল্লিখিত হইয়াছে। দাযুদের পিতা সুলেমান গৌড় হইতে রাজধানী টাড়ায় লইয়া যান। মুনিম খাঁ যুগযুগান্তর ব্যাপিয়া গঠিত গৌড়ের বিশাল ও সুন্দর সৌধাবলি দেখিয়া তাহাকেই ৰাঙ্গলার রাজধানীর উপযুক্ত বলিয়া মনে করেন, এবং টাড়া হইতে পুনৰ্ব্বার রাজধানী গৌড়ে স্থাপন করিবার জন্য আদেশ দেন। সেই সময়ে ঘোরতর বর্ষ উপস্থিত হইয়াছিল। কিন্তু সুবেদার। আপনার ইচ্ছার অনুবাত্ত