পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


३ दbब्रि क्रिक्शन । R সরকারের কাজিহাটা নামুক স্থানে গঙ্গা দুই অংশে বিভক্ত হইয়াছে ৮ उॉशब्र এক ধারা পূৰ্বাভিমুখে অগ্রসর হইয়া চাটগায়ের নিকট সাগরে আত্ম-সমৰ্পণ করিয়াছে ; এই ‘বিচ্ছিন্ন স্রোন্তোধারকে পদ্মাবতী বলা হয়। অপর অংশ দক্ষিণ দিকে প্ৰৱাহিত হইয়া পুনরায় তিন অংশে বিভক্ত হইয়া যায়, তাহার একটি সরস্বতী, একটি যন ( বা যমুনা ) এবং তৃতীয়টি গঙ্গা নামে অভিহিত হইয়াছে। . এই তিনটিকে একত্রে হিন্দীতে ‘ত্ৰিবেণী” বলে এবং হিন্দুর চক্ষে অতি পবিত্র বলিয়া প্ৰতিভাত হয়। তৃতীয়টি ( বর্তমান হুগলী নদী) সাতগার *নিকট সহস্ৰ-ধারায় অঙ্গ এলাইয়া দিয়া অবশেষে সাগরের অনন্ত পারাবারে অস্তিত্ব বিলুপ্ত করিয়াছে । সরস্বতী এবং যমুনাও সাগরের প্রশান্ত হৃদয়ের অভ্যন্তরে আশ্রয় প্ৰাপ্ত হইয়াছে।” মুসলমান রাজত্বের প্রথম ভাগে, সাতগাঁ নিম্ন বঙ্গের শাসনকৰ্ত্তার রাজধানী ছিল ; তথায় একটি টাকশালও প্রতিষ্ঠিত হয় । এক সময় ব্যবসায় বাণিজ্য ও আমদানীরপ্তানীর আধিক্যে সাতগা ভারতবর্ষের মধ্যে এক অতি সমৃদ্ধিশালী নগর মধ্যে পরিগণিত হয়। (১) ও তৎপর। পৰ্য্যাটক বঙ্গের শাসনকৰ্ত্তাগণের পরিচয় লিপিবদ্ধ করিয়াছেন। বঙ্গদেশের সুলতানের বিবরণ । এই সময় বঙ্গের সিংহাসনে সুলতান ফখরুদ্দীন সমাসীন। তিনি অতি উৎকৃষ্ট নরপতি ছিলেন এবং বিদেশীয়দিগকে,-বিশেষতঃ ফকির ও সুফীদিগকে মেহের চক্ষে অবলোকন করি।-- তেন । দেশের শাসনভার সুলতান গিয়াসউদ্দীন বলবনের পুত্র সুলতান নাছির দীনের হস্তে ন্যস্ত ছিল । এই নুরপতি স্বীয় श्रृख भूठेछाभूक्तैनटक निल्लीब्र সিংহাসনে প্ৰতিষ্ঠিত করেন; কিন্তু পরে তাহারই বিরুদ্ধে সমরসজ্জার আয়োজনে ব্যস্ত হইয়া পড়েন । পিতা পুত্ৰে গঙ্গার তীরে সাক্ষাৎলাভ করেন ; তাহাদের এই মিলন শুভ-সংযোগ বলিয়া বিবেচিত হয় । ৬৬৪ হিজরীতে গিয়াসউদ্দীন বলবন দিল্লীর সিংহাসনে আরোহণ করেন। (3) Hunter's Statistical Account of Bengal vol. 1.