পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (তৃতীয় বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আহেরিয়া । ( ܦ ) কৃষ্ণ রাজস্থানের দুইটি বংশের অশান্তির আগুন নিভাইয়া আপনার হৃদয়ে আগুন জালিয়া , দিল। যদিও তাহাদের একটি রক্ষা পাইয়াছিল, কিন্তু অপরটি আর একটির সহিত দগ্ধ হইয়া যায়। অম্বর রাজবংশ রক্ষা পাইলেও বুন্দী ও মিবার কৃষ্ণার হৃদয়ের আগুনে পুড়িয়া ছারখার হইয়াছিল। । পুষ্করের শুক্লাষ্টমীর ঘটনা বালিকা কৃষ্ণার হৃদয়ে অধিক দিন জাগিয়া না থাকিলেও রত্নসিংহের মন হইতে তাহা কদাচি মুছিয়া যায় নাই। রত্নসিংহ কৃষ্ণার সেই কমনীয় প্ৰতিমা হৃদয়ে স্থাপন করিয়াই রাখিয়াছিলেন । কিন্তু রাণ সঙ্গের মত পিতার নিকট তিনি ইহা ব্যক্তি করিতে সাহসী হন নাই। তদ্ভিন্ন রত্ন মনে করিয়াছিলেন যে, কৃষ্ণাই তাহার পিতামাতার নিকট পুষ্করের ব্যাপার বলিয়া ফেলিবে, এবং তঁাহারাই উদেযাগ করিয়া কৃষ্ণার সহিত রক্সের বিবাহ প্ৰদান করিবেন । কিন্তু তিনি বুঝিতে পারেন নাই যে, তাহার ন্যায় কৃষ্ণার ও দশা ঘৰটিয়াছিল । সেও গুপ্ত পরিণয়ের কথা আপনার পিতামা তাকে বলিতে সাহসী হয় নাই । যখন তিনি শুনিলেন যে, সূৰ্য্যামল্লের সহিত কৃষ্ণার বিবাহ হইয়া গিয়াছে, তখন তিনি ক্ষোভে ও রোধে উ.ে &i৬, ৩০ হ২১। উঠলেন । কৃষ্ণার প্রতি তাহার ঘূণার সঞ্চার হইল ও স্ব ধূমলের প্রতি তাহার প্রতিহিংসার অগ্নি জলিয়া উঠিল । সে সময়ে রাণা সঙ্গ, জীবিত । রত্নসিংহ মনের আগুন মনেই চাপিয়া রাখিলেন । রাণী সঙ্গ রাষ্ট্রের বিবাহের উদেযাগ করিতে লাগিলেন । সুৰ্য্যমল্পের ভগিনী সুজাবাইএর সহিত রত্বের বিবাহ হইয়া গেল । এই বিবাহসময়ে । আৰাৱ কৃষ্ণার সহিত রত্নের সাক্ষাৎ হয় । আবার চারিচক্ষের মিলন হইল, রজের প্রতি কৃষ্ণার দীনদৃষ্টিতে রাজের হৃদয়ে আবার আগুন জলিয়া উঠিল।