পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিম সেখ SS বসির আর কোন কথা বলিল না। করিম পরদিন কোথা হইতে দশটা টাকা আনিয়া বসিরের হাতে দিয়া বলিল, “আর দেৱী করলে চলিবে না ; আর আর গায়ের লোকেরা চ’ল গেছে ; দেৱী হ’লে হয় তা আমরা কাজ পাব না।” পরদিন আহারান্তে নৌকা ছাড়িয়া দেওয়াই স্থির হইল। করিম এদিকে গোপনে আরও পাচটী টাকা বসিরের স্ত্রীকে দিতে গেল ; সে বলিল, “দেখ এ টাকার কথা কাহাকেও ৷ বলিও না। যদি খরচের টাকার কম পড়ে তখন এই টাকা খরচ করিও । আমি আছি, তোমাদের কোন কষ্ট হইবে না।” বসিরের স্ত্রী এমনভাবে টাকা লওয়া কৰ্ত্তব্য মনে করিল। না । সে করিমের সহিত কথা বলিত ; সে বলিল, “আমার টাকার দরকার কি ! মায়ের হাতে এ টাকা ও দিয়া যাও, তিনিই খরচ করবেন।” করিম বলিল “র্তাকে দশ টাকা দিয়াছি, এ টাকা আমি তোমাকে দিলাম। তোমার যখন যা দরকার হবে এই টাকা দিয়া কিনিও । এ টাকা তুমি না নিলে আমি বড়ই রাগ করব। আর এ টাকার কথা কাহাকেও বলিও না ।” বসিরের স্ত্রী এতদিন করিমের প্রদত্ত অনেক দ্রব্য গ্ৰহণ করিয়াছে বটে, কিন্তু কোন দিনই সে সে সকল উপহার প্ৰসন্ন বদনে গ্ৰহণ করিতে পারে নাই। যখনই করিম যে দ্রব্য দিতে আসিয়াছে, তখনই সে প্ৰতিবাদ করিয়াছে ; তবে পাছে তাহার স্বামী অসন্তুষ্ট হয়, এই ভাবিয়া সে নিতান্ত অনিচ্ছা সত্ত্বেও সেই সকল উপহার গ্ৰহণ করিয়াছে এবং স্বামী বাড়িতে আসিলেই সমস্ত কথা তাহাকে বলিয়াছে।