পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S8 করিম সেখ একে বিদেশ, বিভুই, আর এখানটায় বড়ই জঙ্গল, একখানি নৌকাও এখানে নেই। চল ভাই এখানে নৌকা বেঁধে কাজ নেই। ঐ বন্দরে অনেকগুলো নৌকাও দেখা যাচ্ছে। রাত্রিকালে এই জঙ্গলের পাশে না থেকে আর একটু যাওয়াই उठाक ।” করিম বলিল, “বসির ভাই, দেখছি না জোয়ারের টান! এ ঠেলে যাওয়া বড়ই কষ্ট হবে। কেন, এ স্থানটা মন্দ কি ? এখানেই থাকি, শেষরাত্রের ভাটায় নৌকা ছেড়ে দেব। এই ভাটাতেই আমরা তিন নম্বর ঘাটে পৌছতে পারব। ঐ ত বন্দর, এখানে ভয়ই বা এমন কি ?” করিমের কথায় :বসির আর আপত্তি করিল না, দুই জনে খালের মাঝখানে নৌকা বাধিল । সুন্দরবন অঞ্চলে রাত্রিকালে তীরে নৌকা বাধিতে নাই, বড় বাঘের ভয় । এমনও শুনিতে পাওয়া যায় যে, বাঘেরা সাঁতরাইয়া নদীর মধ্যস্থিত নৌকা হইতেও মানুষ লইয়া যায়। নৌকা বাধা হইলে বসির বলিল, “করিম ভাই, এ রাত্ৰিতে আর ভাত রোধে কাব্য নেই, নৌকার উপর আগুন জ্বালালেই বাঘই হোক আর মানুষই হোক জানতে পারবে যে, এখানে একখানি নৌকা আছে। তাতে বিপদও হোতে পারে। ও বেলার যে কয়টা ভাত আছে তাই দুজনে খালী, আর কাল যে চিড়ে কিনেছিলাম, তারও কিছু আছে, তাতেই আজ রাত কাটান যাক। دسم করিম তাহাতেই সম্মত হইল। হাত মুখ ধুইতেই সন্ধ্যার আাধার ঘনাইয়া আসিল। তখন দুই বন্ধুতে তামাক খাইতে খাইতে