পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিম সেখ AS অথচ তাহার সহিত কথাটা পৰ্যন্ত বলে না, তাহার দিকে ফিরিয়াও চাহে না। ইহা নিতান্তই অসহ! এমন করিয়া সে আর কত কাল কষ্ট সহ্য করিবে ? তাহার সহিষ্ণুতা, আত্মসংযমশক্তি সীমা অতিক্ৰম করিতেছে। সে আর তাহার মনের ভাব গোপন করিয়া রাখিতে পারিতেছে না । বসিরের বিধবা পত্নীকে লাভ করিতেই হইবে। সহজে যদি সে তাহাকে নিকা করিতে না চায়, তাহা হইলে তাহার প্রতি বল প্রয়োগ করিতেও সে কুষ্ঠিত হইবে না। তাহার প্রতিজ্ঞ, এই সুন্দরী যুবতীকে লাভ করিতেই হইবে—জান কবুল ! এতদিন করিমের বিশ্বাস ছিল এই পল্লীবাসিনী সরলস্বভাব সুন্দরী কখনই তাহার প্রস্তাব প্ৰত্যাখ্যান করিতে পরিবে না । কেন সে করিমকে বিবাহ করিতে অস্বীকার করিবে ? বসির অপেক্ষা সে সৰ্ব্বাংশে শ্রেষ্ঠ ; তাহার রূপ আছে, দেহে শক্তি আছে, যৌবন আছে, সে একেবারে পথের ভিখারীও নহে। এখনও তাহার বাড়ীতে তিন খানি লাঙ্গল আছে, এখনও তাহার ৫ গোশালায় গাই বলদে দশ বারটা মজুদ। কিসে সে এই সুন্দরীর অযোগ্য ? সে যে কালে অর্থ উপাৰ্জন করিয়া, গ্রামের মণ্ডল হইবে না, এ কথাই বা অসম্ভব কেন ? সে মনে করিয়াছিল, তাহার প্রতি কৃতজ্ঞতার খাতিরেও বসিরের স্ত্রী. তাহাকে নিকা করিতে সম্মত হইবে। কিন্তু এখন সে দেখিতে পাইল যে, বসিরের স্ত্রীর রকম ভাল নহে। তাহার প্রতি অনুরক্ত হওয়া দূরে থাকুক। সে করিমকে ঘুণা করে ; কাজেই করিম এই অকৃতজ্ঞা যুবতীর অবিমূৰ্য্যকারিতার প্রতিশোধ দিবার জন্য কৃতসঙ্কল্প হইল। সে অবশেষে স্থির করিল যে, বসিরের বৃদ্ধ মাতার নিকট