পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিম সেখ SNO সমস্ত রাত্রি এই ভাবে কাটাইয়া অতি প্ৰত্যুষে সে উন্মত্তের কৃষ্ঠায় বাড়ীতে উপস্থিত হইল। তখনও উষার তপনের স্বর্ণরেখা দিকচক্রবালে দেখা দেয় নাই, কাহারও নিদ্রাভঙ্গ হয় নাই, গ্রামের লোক কেহ জাগিয়া উঠে নাই । ‘করিম গৃহে ফিরিয়া বাড়ীর বাহিরের ঘরের দাওয়ায় পড়িয়া রহিল। শ্রাস্তিভরে দেহ অবসন্ন, কিন্তু কিছুতেই তাহার নিদ্ৰা আসিল না ! সে সেই দাবার উপর পড়িয়া ক্ৰমাগত গড়াইতে লাগিল, কখনও বা চিকিতভাবে উঠিয়া বসিয়া বাহিরের দিকে শূন্যদৃষ্টিতে চাহিয়া রহিল ! প্ৰাতঃকালে করিমের পিতা বাহিরে আসিয়া দেখে করিম বসিয়া আছে। তাহার মস্তকের কেশ রুক্ষ্ম,নয়নে অস্বাভাবিক দীপ্তি, মুখমণ্ডল বিবৰ্ণ । পুত্রের এই অবস্থা দেখিয়া তাহার মনে ভয়ের সঞ্চার হইল। সে তখন ডাকিল৷ “করিম ” করিম চমকিয়া উঠিল। বজুধবনিব্যুৎ যেন সে শব্দ তাহার কৰ্ণে ধবনিত হইল। আবার করিম এক লম্ফে উঠানে নামিল, তাহার পর বিকট চীৎকার করিয়া উঠিল “করিম” এবং পরীক্ষণেই বাড়ী ছাড়িয়া মাঠের দিকে দ্রুতবেগে দৌড়াইল । করিমের এই অবস্থা দেখিয়া তাহার পিতা অত্যন্ত ভীত হইল। সে তখন তাড়াতাড়ি বাড়ীর মধ্যে গিয়া আর সকলকে ডাকিয়া তুলিল। তখন চারিদিকে করিমের সন্ধানে লোক ছুটিল। কিছুক্ষণ পরে শুনিতে পাওয়া গেল, করিম গ্রামের পশ্চিমদিকের একটা মাঠের মধ্যে অচৈতন্য অবস্থায় পড়িয়া আছে। এই সংবাদ পাইয়া করিমের পিতা এবং তাহার পাড়ার আর কয়েকজন তথায় চলিয়া গেল। তথন সকলে মিলিয়া করিমকে স্কন্ধে করিয়া বাড়ীতে লইয়া আসিল। তখনও সে অচেতন। জ্ঞানসঞ্চারের জন্য তাহার శ్లో ܠ .