পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


r ভূমিকা এখন পুস্তক লিখিলেই তাহার ভূমিকা কোন হোমরাচােমরা লোকের দ্বারা লিখাইয়া লইবার রেওয়াজ হইয়াছে। কিন্তু আমার যে হোমরাচোমরা লোকের কাছে যাইতে সাহসে কুলায় না ; বিশেষতঃ আমি দরিদ্র, নিরক্ষর, চির-অনাদৃত, কৃষিজীবী মুসলমান যুবকের সুখ-দুঃখের কথা লিখিয়াছি; ইহার ভূমিকা লিখিয়া দিবার জন্য অনুরোধ করিলেও কি কেহ সে অনুরোধ রক্ষা করিতেন ? তাই আমার এই বইয়েরও ভূমিকা আমিই লিখিলাম। অনেকদিন পূর্বে “ঢাকা রিভিউ ও সম্মিলন” পত্রে ‘পাপের ফল’ বলিয়া একটি ছোট গল্প লিখিয়াছিলাম। গল্পট ছাপা হইবার পর দেখিলাম যে, তাহার শেষাংশ ভাল হয় নাই। তখন গল্পটার শেষাংশ নূতন করিয়া, নূতন ঘটনার সমাবেশ করিয়া লিখিবার ইচ্ছা হইল। লিখিতে বসিয়া শেষাংশত একেবারে নূতন করিয়া লিখিলামই, প্ৰথমাংশেরও অনেক পরিবর্তন ও পরিবদ্ধন করিয়া ফেলিলাম। শেষে দেখিলাম গল্পটী ছোট ত রহিলাই না, মাঝারিরও উপরে যাইয়া উঠিল । তখন গল্পটী দপ্তরজাত করিলাম-ছাপাইবার উৎসাহ রহিল না । এমন সময় একদিন সুহৃদ্ধর শ্ৰীযুক্ত সরোজনাথ ঘোষ আমার দপ্তরখানা তল্লাস করিয়া ঐ গল্পের পাণ্ডুলিপি বাহির করিলেন এবং তাহা পড়িয়া বলিলেন যে, আমি যদি গল্পট পুস্তকাকারে ছাপাইতে স্বীকার করি, তাহা হইলে তিনি ইহার জন্য পরিশ্রম করিতে প্ৰস্তুত আছেন। সুহৃদ্ধর তাহার প্রতিশ্রুতি রক্ষণ