পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8bo করিম সেখ যে, এই ছেলেটা নিয়ে আমি না খেয়ে মরব, তা হলে তাই হোক। তোমার যেখানে যেতে হয় যাও, আমি কোথাও যাব না ।” বুড়ী এই কথা শুনিয়া ৰীেকে অকথ্য ভাষায় গালি দিতে লাগিল; বীে নীরবে সকল কথা সহ্য করিল। শেষে বুড়ী বলিল “তোর নসিবে আল্লা অনেক দুঃখ লিখেচে, তা আমি কি কোরব। তোর ছেলেটা যদি না থাকত তা হলে আমি এত "কথা বলতাম না । একে ফেলে আমি কোথায় যাব ? তা যাক, এখন দুবেলা দুটাে দানার কি হবে বল ত ? তুই কি মনে ঠিক করেছিস ।” বেী বলিল “ও পাড়ার আমীর মণ্ডলের বীে বলছিল যে, আমি যদি তাদের বাড়ী রান্না করি তা হলে তারা আমায় দুটো খেতে দেয়, ছেলেটারও একটু দুধ দিতে পারে। আমি তাকে বল্লাম ষে আমার শাশুড়ীর কি হবে ? তাতে সে বললে যে এতগুলো মানুষকে খেতে দিতে তারা পারবে না। আমি তাতে বললাম যে তাকে খেতে দিতে হবে না, আমাকে যে ভাত দেবে তাই বাড়ী নিয়ে গিয়ে আমরা শাশুড়ী-বীেয়ে চালিয়ে নেব । সে তাতে স্বীকার হয়েছে। তারপর তাদের বাড়ী ত সারাদিন রান্না করতে হবে না, ছবেলা রোধে দিয়ে এলেই হবে। আমরা বাড়ী বসে দড়ি কাটিব, ধান ভানব, মটর কলাই ভাঙ্গব, তাতেও ত কিছু হবে। এমন করে কি চলবে না ? তারপর আল্লার দোয়ায় যদি ছেলেটারে মানুষ করতে পারি। তখন মা, আর দুঃখু থাকবে না।” বীেয়ের কথা শুনিয়া বুড়ী দীর্ঘনিঃশ্বাস ফেলিয়া বলিল “হা, আল্লা, আদেষ্টে এত কষ্টও ছিল ; আরও বা কি আছে!” ৰসিরের স্ত্রী যাহা বলিয়াছিল, তাহাই করিল। সে পয়ের দিন