পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


GR করিম সেখ মায়ের কথা, স্ত্রীর কথা মনে আসিল ; আর তাহার প্রাণের বন্ধু, জীবনের সহচর করিমের কথা মনে আসিল । তখন বিজলিবিকাশের ন্যায় সত্যের আলোকে অকস্মাৎ তাহার মস্তিষ্ক উজ্জল झझेम्ना छैठेिव्न । বসির উঠিয়া বসিবার জন্য চেষ্টা করিল, গাছের বন্ধন হইতে দেহাটীকে মুক্ত করিবার জন্য তাহার ইচ্ছা হইল ; কিন্তু তাহার শরীর শক্তিহীন, অবশ্য! তাহার হাত পা নাড়িবারও শক্তি পৰ্যন্ত ছিল না ; সে পাশ ফিরিবার চেষ্টা করিল, কিন্তু পারিল না। যেমন অবস্থায় ছিল, সেই ভাবেই আরও কিছুক্ষণ গেল। ক্রমশঃ তাহার হৃদয়ে ভয়ের সঞ্চার হইল। তাহার মনে হইতে লাগিল, এখনই যদি নদীর মধ্য হইতে একটা কুমীর আসিয়া তাহাকে জলের মধ্যে টানিয়া লইয়া যায় ! এখনই যদি জঙ্গলের মধ্য হইতে একটা বাঘ মানুষের গন্ধ পাইয়া সেখানে উপস্থিত হয়। কে তাহাকে এ বিপদ হইতে রক্ষা করিবে ? কিন্তু সে তখন এ কথা ভাবিতে পারিল না যে, প্ৰাণের বন্ধুর প্রদত্ত বিষ পান করিয়াও তাহার মৃত্যু হয় নাই, এই কুন্তীর পরিপূর্ণ জলের মধ্যে এতক্ষণ থাকিয়াও সে সেই দুৰ্দান্ত জীবের : উদরগত হয় নাই। যে অদৃশ্য হস্ত এমন ভয়ানক বিপদ হইতে তাহাকে উদ্ধার করিয়াছে, সেই দয়াময়ের মঙ্গল হস্তই এখনও তাহার উপর প্রসারিত রহিয়াছে। যিনি তাহাকে এই জনশূন্য স্থানে এই ভীষণ অবস্থায় এতক্ষণ রক্ষা করিয়াছেন, যদি তাহার কৃপা হয় তাহা হইলে এখনও তিনিই তাহাকে রক্ষা করিবেন। সে কথা তখন তাহার মনে আসিল না+ সে শুধু ভাবিতে লাগিল, এই বুঝি তাহার প্রাণ যায়, এই বুঝি মৃত্যু আসিতেছে ।