পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৭১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিম সেখ - V(t হইতে সে এখানে আছে ; লোকটী খুব বিশ্বাসী এবং কাজকৰ্ম্মেও হুসিয়ার । তাই সে নায়েব মহাশয়কে পরামর্শ দিতে সাহস পায় ; অন্য কেহ হইলে এত সাহস পাইত না । , বিপিন বাবু আজমের পরামর্শে বিরক্ত না হইয়া বলিলেন “না হে, তুমি বুঝতে পারছি না।” এ জ্বর বড় সহজ নয় ; আজ রাত্ৰিতেই যদি ওষুদ না পড়ে তা হ’লে লোকটী মাৱা যেতে পারে। ওকে যখন পথ থেকে কুড়িয়ে এনেছি, তখন যথাসাধ্য চিকিৎসা করাতেই হবে । তার পর ওর পরমায়ু থাকে, বঁচবে। তা ত গেল, এখন কি করা যায় ?” এই বলিয়া বিপিন বাবু চিন্তা করিতে লাগিলেন। অধর সেখানে দাড়াইয়া ছিল, তাহার দুই মামা নায়েব মহাশয়ের জিনিসপত্র কাছারীতে তুলিয়া দিয়া বাড়ীতে যাইবার সময় অধরকে ডাকিয়াছিল। অধর তাহাতে বলিয়াছিল “তোমরা যাও, লোকটার খাওয়া হ’লে আমি যাচ্ছি।” বিপিন বাবুকে চিন্তিত দেখিয়া আধর বলিল “বাবুজি, আপনি যদি হুকুম করেন তা হ’লে আমি হেঁটেই বালুঘাটে গিয়ে ডাক্তার বাবুকে খবর দিতে পারি।” বিপিন বাবু অধরের দিকে চাহিয়া বলিলেন “বেলা চারটে বাজে। হেঁটে গেলে তুই কি সন্ধ্যার আগে পৌছিতে পারবি। সন্ধ্যার পর ডাক্তার কিছুতেই এই জঙ্গলের পথে আসতে চাইবে না। আর তুই-ই বা আসবি কি করে ?” অধর বলিল “তিন ক্রোশ রাস্তা আমি সন্ধ্যায় আগেই যেতে পারব। সেখানে গিয়ে ডাক্তার বাবুকে ঘোড়ায় পাঠিয়ে দেব !