পাতা:কাব্যগ্রন্থ (অষ্টম খণ্ড).pdf/১৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শারদোৎসব লক্ষেশ্বর ওরে । সব ঘোড়সওয়ার আসে কোথা থেকে । রাজা আমার গজমোতির খবর পেলে না কি ! এর চেয়ে উপনন্দ যে ছিল ভাল ! এখন কি করি ! ( সন্ন্যাসী ধরিয়া) ঠাকুর, তোমার পায়ে ধরি, তুমি ঠিক এইখানটিতে বস—এই যে এইখানে—আর একটু বা দিকে সরে এস—এই হয়েচে । খুব চেপে বস! রাজাই আস্থক আর সম্রাটই আস্থক তুমি কোনোমতেই এখান থেকে উঠো না ! তাহলে আমি তোমাকে খুসি করে দেব ! ঠাকুরদাদা আরে লখী করে কি ! হঠাৎ খেপে গেল না কি ! লক্ষেশ্বর ঠাকুর, আমি তবে একটু আড়ালে যাই । আমাকে দেখলেই রাজার টাকার কথা মনে পড়ে যায়। শত্ররা লাগিয়েচে আমি সব টাকা পুতে রেখেচি—শুনে অবধি রাজা কত জায়গায় কূপ খুড়তে আরম্ভ করেচেন তার ঠিকানা নেই। জিজ্ঞাসা করলে বলেন প্রজাদের জলদান করচেন। কোনদিন আমার ভিটেবাড়ির ভিৎ কেটে জলদানের হুকুম হবে, সেই ভয়ে রাত্রে ঘুমতে পারিনে ! ( প্রস্থান ) Ꮌ©bᎹ