পাতা:কাব্যগ্রন্থ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৮৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অজ্ঞাত বিশ্ব জন্মেছি তোমার মাঝে ক্ষণিকের তরে অসীম প্রকৃতি । সরল বিশ্বাসভরে তবু তোরে গৃহ বলে মাতা বলে মানি । আজ সন্ধ্যাবেলা তোর নখদন্ত হানি’ প্রচণ্ড পিশাচরূপে ছুটিয়া গজ্জিয়া আপনার মাতৃবেশ শূন্যে বিসৰ্ভিজ্জয়৷ কুটি কুটি ছিন্ন করি’, বৈশাখের ঝড়ে ধেয়ে এলি ভয়ঙ্করী ধূলিপক্ষপরে, তৃণসম করিবারে প্রাণউৎপাটন। সভয়ে শুধাই আজি, হে মহাভীষণ, অনন্ত আকাশপথ রুধি’ চারিধারে কে তুমি সহস্ৰবাহু ঘিরেছ আমারে ? আমার ক্ষণিক প্রাণ কে এনেছে যাচি’ ? কোথা মোরে যেতে হবে, কেন আমি আছি ? ২রা বৈশাখ, '\రి ov) |