পাতা:কাব্যগ্রন্থ (দশম খণ্ড).pdf/১৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গান সম্মুখে অনন্ত রাত্রি, আমরা দুজনে যাত্রী সম্মুখে শয়ান সিন্ধু, দিগ্বিদিক হারাইয়া । জলধি রয়েচে স্থির, ধ-ধ করে সিন্ধুতার, প্রশান্ত সুনীল নীর নীল শূন্যে মিশাইয়া । নাহি সাড়া নাহি শব্দ, মস্ত্ৰে যেন সব স্তব্ধ, রজনী আসিছে ঘিরে দুই বাহু প্রসারিয়া ৷ যে ফুল ঝরে সেই ত ঝরে ফুল ত থাকে ফুটিতে, বাতাস তা’রে উড়িয়ে নে যায়, মাটি মেশায় মাটিতে গন্ধ দিলে হাসি দিলে, ফুরিয়ে গেল খেল । ভালবাসা দিয়ে গেল, তাই কি হেলাফেলা ॥ সারা বরষ দেখিনে মা, মা তুষ্ট আমার কেমন ধারা নয়নতার হারিয়ে আমার অন্ধ হ’ল নয়ন-তার | এলি কি পাষাণী ওরে, দেখ ব তোরে তাঁখি ভরে’, কিছুতেই থামে না যে মা, পোড়া এ নয়নের ধারা । আমরা বসব তোমার সনে । তোমার সরিক হব রাজার রাজা তোমার অাধেক সিংহাসনে ৷ >sb"