পাতা:কাব্যগ্রন্থ (দশম খণ্ড).pdf/১৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বসন্ত-রজনী শেষে বিদায় নিতে গেলেম হেসে, যাবার বেলায় বঁধু আমায় কাদিয়ে কেদেচে । அடிக_றது_க_ஆக ভালবাসিলে যদি সে ভালো না বাসে, কেন সে দেখা দিল । মধু অধরের মধুর হাসি প্রাণে কেন বরষিল । দাড়ায়ে ছিলেম পথের ধারে, সহসা দেখিলেম তীরে, নয়ন দুটি তুলে কেন মুখের পানে চেয়ে গেল । আজ তোমারে দেখতে এলেম অনেক দিনের পরে ॥ ভয় কোরো না সুখে থাক, বেশি ক্ষণ থাকব না ক, এসেচি দণ্ড তুয়ের তরে । দেখ ব শুধু মুখখানি, শুনাও যদি শুনব বাণী, না হয় যাব আড়াল থেকে হাসি দেখে দেশান্তরে | বঁধুয়া, অসময়ে কেন হে প্রকাশ । সকলি যে স্বপ্ন বলে’ হতেচে বিশ্বাস ॥ তুমি গগনেরি তারা, মর্ত্যে এলে পথহারা, এলে ভুলে অশ্রুজলে আনন্দেরি হাস ॥ Ꮌ © o