পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/১৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজা যে নিষ্ঠুর, তার কঠিন তাতে কি অমন মিনতির স্বর বাজে ! বাইরের লোক তামার তাসম্মানটাই দেখে গেল—কিন্তু গোপন রাত্রের সেই স্তরটা কেবল তামার হৃদয় ছাড়া আর ত কেউ শুনল না ! সে বীণা তুই কি শুনেছিলি রেঙ্গমা ? না সে আমার স্বপ্ন ! সুরঙ্গম । সেই পাণ শুনব বলেই ত তোমার কাছে কাছে আছি । অভিমান-গলানে সুর বাজবে জেনেই কান পেতে পড়েছিলুম। সুদৰ্শন । তা’র পণটাই রইল--পথে বের করলে তবে ছাড়লে । মিলন হ’লে এই কথাটাই তাকে বলল যে, আমিই এসেছি, তোমার আসর অপেক্ষা করিনি । বলল চোখেৰ জল ফেলতে ফেলতে এসেছি--কঠিন পথ ভাঙতে ভাঙতে এসেছি ! এ গরব আমি ছাড়ব না ! সুরঙ্গম। । কিন্তু সে গৰ্ব্বল ও তোমার টিকবে না । সে যে তোমার ও আগে এসেছিল নইলে তোমাকে বের করে কা’র সাধ । সুদৰ্শন । তা হয় ত এসেছিল—আভাস পেয়েছিলুম কিন্তু বিশ্বাস করতে পারিনি । যতক্ষণ অভিমান করে’ বসেছিলুম ততক্ষণ মনে হয়েছিল সেও আমাকে ছেড়ে গিয়েছে—অভিমান ভাসিয়ে দিয়ে যখনি রাস্তায় বেরিয়ে পড়লুম তখনি মনে হ’ল সেও বেরিয়ে এসেছে, ১৩৫