পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/১৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন সঞ্জাব । তোমার সেই গুণে উপাধ্যায় মশায়কে ষে মুগ্ধ করতে পেরেচ ত| ত বোধ হয় না । পঞ্চক । আমি তাকে কত বোঝাবার চেষ্টা করি যে বিদ্যাসম্বন্ধে আমার একটুও নড়চড় নেই—ঐ যাকে বলে ধ্রুব নক্ষত্র—তা’তে সুবিধা এই যে এখানকার ছাত্ররা যে কতদূর এগল তা আমার সঙ্গে তুলনা করলেই বোঝা যাবে ! জয়োন্তম । তোমার আশ্চৰ্য্য এই স্বযুক্তিতে উপাধ্যায় মশয়ের বোধ হয়— পঞ্চম । না, কিছু না— তার মনে কিছুমাত্র বিকার ঘটল না। আমার সম্বন্ধে পূর্বের তার যে ধারণা ছিল সেইটেষ্ট দেখলুম আরো পাক হ’ল । সঞ্জীব । আমরা যদি উপাধ্যায় মশায়কে তোমার মতন অমন যা-ত বলতুম তাহলে রক্ষ থাকৃত না । কিন্তু পঞ্চকের বেলায়— পঞ্চক। তার মানে আছে। কুতর্কটা আমার পক্ষে এমনি সুন্দর স্বাভাবিক যে সেটা আমার মুখে ভারি মিষ্ট শোনায়। সকলেই খুসি হ’য়ে বলে, ঠিক হয়েচে, পঞ্চকের মতই কথা হয়েচে । কিন্তু ঘোরতর বুদ্ধির পরিচয় না দিতে পারলে তোমাদের আদর নেই। এমনি তোমরা হতভাগ্য । X (łS