পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/২৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন পঞ্চক । ঠাকুর, আমি ত সেই বর্ষণের জন্তে তাকিয়ে আছি। যতদূর শুকোবর তা শুকিয়েচে, কোথাও একটু সবুজ আর কিছু বাকি নেই, এইবার ত সময় হয়েচে-মনে হচ্ছে যেন দূর থেকে গুরু গুরু ডাক শুনতে পাচিচ । বরি এবার ঘন নীল মেঘে তপ্ত হাকাশ জুড়িয়ে যাবে ভরে যাবে । দাদ12কুল 5(FI বুঝি এল, বুঝি এল, ওরে প্রাপ ! এব:র ধর দেখি তোর গান ! ঘাস ঘাসে খবর ছোট ধর। বুঝি শিউরে ওঠে, দিগক্ষে ঐ স্তব্ধ আকাশ পেতে আছে কান পঞ্চক । ঠাকুর, আমার বুকের মধ্যে কি আনন্দ যে লাগচে সে আমি বলে উঠতে পারিনে । এই মাটিকে জড়িয়ে ধরতে ইচ্ছে করে । ডাক ডাক, তোমার একটা ডাক দিয়ে এই আকাশ ছেয়ে ফেল ! গান জমঞ্জি যেমন করে” গাং চে অ কাশ তেমনি কবে? গাও গো ! যেমন করে চাইচে আকাশ তেমনি করে' চাও গেী । ૨૦ ૧