পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/৬৩৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনের শাখা কথা বলে, কথা জাগে সাগরজলে, এই ভুবনে আমরা কিছুই বলব না ! কোথা হ’তে লাগে রে টান, জীবনজলে ডাকে রে বান, আমরা ত এই প্রাণের টলায় টলব না ৷ ওরে হাসিরে হাসি ! ঐ হাসি শোনা যাচ্চে । বঁাচা গেল এতক্ষণে একটা হাসি শোনা গেল ! যেন গুমটের ঘোমটা খুলে গেল । এ যেন বৈশাখের এক পস্লা বৃষ্টি ! কার হাসি ভাই ? শুনেই বুঝতে পারচিস্নে, আমাদের চন্দ্রহাসের হাসি। কি আশ্চৰ্য্য হাসি ওর ? যেন ঝরনার মত, কালো পাথরটাকে ঠেলে নিয়ে চলে। যেন সূর্য্যের আলো, কুয়াশার তাড়ক রাক্ষসীকে তলোয়ার দিয়ে টুকরো টুকরো করে কাটে। যাক আমাদের চৌপদীর ফঁাড়া কাটুল! এবার উঠে পড়। এবার কাজ ছাড়া কথা নেই—চরাচরমিদং সৰ্ব্বং কীৰ্ত্তি র্যস্য স জীবতি । 한 \b> o