পাতা:কাব্যগ্রন্থ (নবম খণ্ড).pdf/৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজা কাছে সমস্ত বিবরণ শুনতে আমার লজ্জা করচে । এইমাত্র হঠাৎ বুঝতে পেরেছি, যা সকলের চেয়ে বড় পাওয়া তা ছয়ে পাওয়া নয়, তেমনি যা সকলের চেয়ে বড় দেওয়া তা হতে করে দেওয়া নয় । তবু বল কি হ’ল বল । রোহিণী । আমি ত রাজার হাতে ফুল দিলুম কিন্তু তিনি যে কিছু বুঝলেন এমন ত মনে হ’ল ন । সুদৰ্শন । বলিস কি ? তিনি বুঝতে পারলেন না ? রোহিণী না, তিনি অবাক হ’য়ে চেয়ে পুতুলটির মত বসে’ রইলেন । কিছু বুঝলেন না এইটে পাছে ধরা পড়ে সেই জন্যে একটি কথা কইলেন না । হয়েছে " তুষ্ট আমার ফল ফিরিয়ে আনলিনে কেন ? রোহিণী । ফিরিয়ে আনা কি করে’ ? পাশে ছিলেন কাঞ্চর রাজা, তিনি খুব চতুর, চকিতে সমস্ত বুঝতে পারলেন ; মুঢ়কে তেসে পল্লেন, মহারাজ, মহিষা সুদৰ্শন, আজ বসন্ত-সখর পূজার পুষ্পে মহারাজের অভ্যর্থনা করচেন। শুনে হঠাৎ তিনি সচেতন হ’য়ে উঠে পল্লেন, আমার রাজসম্মান পরিপূর্ণ হ’ল । আমি লজ্জিত হয়ে ফিরে আসছিলুম এমন সময়ে কাঞ্চীর রাজা মহারাজের গলা থেকে স্বহস্তে এই মুক্তার মালাটি খুলে নিয়ে আমাকে বল্লেন, সখি, তুমি যে \ෂNඵ