পাতা:কাব্যগ্রন্থ (পঞ্চম খণ্ড).pdf/৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সরোবর-সোপানের শ্বেত শিলাপটে । কি অপূর্ব রূপ! কোমল চরণতলে ধরাতল কেমনে নিশ্চল হ’য়ে ছিল ? উষার কনক মেঘ, দেখিতে দেখিতে যেমন মিলায়ে যায়, পূর্ব পর্বতের শুভ্র শিরে অকলঙ্ক নগ্ন শোভা করি? বিকাশিত, তেমনি বসনখানি তা’র অঙ্গের লাবণ্যে মিলাতে চাহিতেছিল মহাহুখে । নামি ধীরে সরোবরতীরে কৌতুহলে দেখিল সে নিজ মুখচ্ছায়া ; উঠিল চমকি । ক্ষণপরে মৃদু হাসি’ হেলাইয়া বাম বাহুখানি, হেলাভরে এলাইয়া দিল কেশপাশ ; মুক্তকেশ পড়িল বিহবল হ’য়ে চরণের কাছে । অঞ্চল খসায়ে দিয়ে হেরিল তাপন অনিন্দিত বাহুখানি—পরশের রসে কোমল কাতর, প্রেমের করুণামাখা । নিরখিলা নত করি শির, পরিস্ফুট দেহতটে যৌবনের উন্মুখ বিকাশ । দেখিলা চাহিয়া নব গেীরতনুতলে আরক্তিম আলজ্জ আভাস ; সরোবরে পা দুখানি ডুবাইয়া দেখিলা আপন >\じ