পাতা:কাব্যগ্রন্থ (পঞ্চম খণ্ড).pdf/৭৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


I>এসিদণ করি । নিত্যদীপ্ত হাসিটির মাঝে ভরা অশ্র করিতেছে বাস, মাঝে মাঝে ছলছল করে’ ওঠে, মুহূৰ্ত্তের মাঝে ফাটিয়া পড়িবে যেন আবরণ টুটি । সাধকের কাছে, প্রথমেতে ভ্রান্তি আসে মনোহর মায়াকায়া ধরি’ ; তা’র পরে সত্য দেখা দেয়, ভূষণ-বিহীনরপে আলো করি অন্তর বাহির । সেই সত্য কোথা আছে তোমার মাঝারে, দাও তা’রে। আমার যে সত্য তাই লও। শ্রান্তিহীন সে মিলন চিরদিবসের । অশ্রু কেন প্রিয়ে ? বাহুতে লুকায়ে মুখ কেন এই ব্যাকুলতা ? বেদনা দিয়েছি প্রিয়তমে ? তবে থাক, তবে থাক। ওই মনোহর রূপ পুণ্যফল মোর। এই যে সঙ্গীত শোনা যায় মাঝে মাঝে বসন্তসমীরে এ যৌবন যমুনার পরপার হতে, এই মোর বহুভাগ্য । এ বেদনা মোর সুখের অধিক সুখ, আশার অধিক আশা, হৃদয়ের চেয়ে বড়, তাই তা’রে হৃদয়ের ব্যথা বলে মনে হয় প্রিয়ে ।