পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১২২

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১১৯
লক্ষ্মীর পরীক্ষা

বাঁধন কাটিয়ে আবার স্বাধীন।

ক্ষীরো


হেঁয়ালিটা ছেড়ে কথা কও সিধে-
অমন করলে হবে না সুবিধে।
নামটি তােমার বলো অকপটে।

লক্ষ্মী


লক্ষ্মী।

ক্ষীরো


তেমনি চেহারাও বটে।
লক্ষ্মী তাে আছে অনেকগুলি,
তুমি কোথাকার বলাে তো খুলি।

লক্ষ্মী


সত্যি লক্ষ্মী একের অধিক
নাই ত্রিভুবনে।

ক্ষীরো


ঠিক ঠিক ঠিক!-
তাই বলে মা গাে, তুমিই কি তিনি?
আলাপ তাে নেই, চিনতে পারি নি।
চিনতেম যদি চরণজোড়া
কপাল হত কি এমন পােড়া!
এসো, বােসা, ঘর করােসে আলাে।
পেঁচাদাদা মাের আছে তাে ভালাে?
এসেছ যখন, তখন মাত,
তাড়াতাড়ি যেতে পারবে না তো।