পাতা:কৃষিতত্ত্ব - নীলকমল লাহিড়ী.pdf/১১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

কৃষিতত্ত্ব । ; or দোয়াস হালকা মৃত্তিকাতে ইহা উৎপন্ন হয়, কিঞ্চিৎ সার দেওয়া উচিত। ইহার নিমিত্ত ক্ষেত্ৰ গভীর করিয়া কর্ষণ করা ও চেলাদি ভাঙ্গিয়া সমতল করা। কৰ্ত্তব্য। মৃত্তিক চুর্ণবৎ করিয়া বীজ বপন করিবে। আশ্বিন হইতে অগ্রহায়ণ মাস বীজ বপনের উপযুক্ত সময়। বিদেশীয় বীজেই ইহা উত্তম। জন্মে ইহা তিনি জাতি, ১ শালগম, ২ দীর্ঘ মুলীয়, ৩ স্পেনিজ । ক্ষেত্রের মধ্যে উত্তর দক্ষিণ ক্ৰমে চৌকা বা শ্রেণি প্ৰস্তুত করিবে, তদনন্তর স্থানে স্থানে গৰ্ত্ত করিয়া বীজ বপন করিবে। বীজ বপনের পর রৌদ্রের উত্তাপ অধিক না লাগে, এমন উপায় করিয়া দিতে হইবে। শালগম জাতি ছয় ইঞ্চি, দীৰ্ঘমূল জাতি চারি ইঞ্চি, স্পেনিজ আট ইঞ্চি অন্তর অন্তর বসাইলে ভাল হয় । ইহার ক্ষেত্রে সময়ে সময়ে জল দিতে হয়। এবং ঘাস ও জঙ্গল হইল নিড়াইয়া পরিষ্কার করা কীৰ্ত্তব্য। ক্ষেত্রে অধিক দিন থাকিলে ইহা ভাল থাকে না। জল না দিলে কঠিন এবং আঁশ হইয়া অখাদ্য श् । শালগাম। উর্বর দোয়াস হালকা মৃত্তিক ইহার নিমিত্ত প্রশস্ত। সারের সহিত কিঞ্চিৎ। লবণ মিশ্রিত করিয়া ক্ষেত্রে দিলে বিশেষ উপকার হয় । ইহা এদেশীয় নয়, কিন্তু এক্ষণে এদেশেরও প্ৰায় সৰ্ব্বত্ৰে কিঞ্চিৎ কিঞ্চিৎ उधांत्रों श् । বিদেশীয় টাটকা বীজ ব্যতীত ইহা জন্মান যাইতে পারে না । ভাদ্রের শেষ হইতে কাৰ্ত্তিক মাস পৰ্য্যন্ত বীজ বপনের সময় । এক কাঠা জমিতে এক ছটাক বীজ বপন করিতে হয় । , চৌকা অথবা আলি প্ৰস্তুত করিয়া তাহাতে বীজ বপন করিবে। মৃত্তিকা নীরস হইলে সময়ে সময়ে অল্প পরিমাণে জল দিতে হয় । তদনন্তর উক্ত প্রকার ভূমি উত্তমরূপে চাষ করিয়া সার ও লবণ দিয়া প্ৰস্তুত করিবে! পূর্বোক্ত প্রক্রিয়া দ্বারা যে চারা জন্মিবে ঐ চারার চারি