পাতা:কৃষিতত্ত্ব - নীলকমল লাহিড়ী.pdf/৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

やや কৃষিতত্ত্ব । গৌর সর্ষপ, সিদ্ধার্থ। শ্বেত সরিষা, ঢেকিয়া অথবা চেপি সরিষা। রক্ত সরিষা যে প্রকার ভূমিতে উৎপন্ন হয়, ইহাও তদ্রুপ ভূমিতে হইয়া থাকে। বিশেষতঃ নদ নদীর পলিযুক্ত চরাভূমিতে সমধিক জন্মে। কোন জেলাতেই ইহার অধিক আবাদ হয় না বটে, কিন্তু সকল জেলাতেই অত্যন্ন মাত্র আবাদ হয়। আসাম, গোয়ালপাড়া, রঙ্গপুর ও কুচবিহারে কিঞ্চিৎ অধিক জন্মে । বপনের সময় এবং বীজের পরিমাণ রক্ত সরিষার তুল্য। ধ্রুপনের কাৰ্য্যপ্ৰণালীও প্রায় তদ্রুপ। পলিযুক্ত চরাভূমিতে বিনা চাষে বপন করা যায়, অন্য প্রকার মৃত্তিক রীতিমত কর্ষণাদি করিয়া বপন করিতে হয়, নিড়ান অনা

  • ig ।।

রক্ত সরিষা যে সময় পক্ক হয়, সেই সময়ে ইহাও পাক হইয়া থাকে। কৰ্ত্তন ও মর্দনাদি সকলই তদ্রপ করিবে । ইহার গুণ। ও রক্ত সরিষার তুল্য।

  • , mạng miny...”

ब्रांधिका । কৃষ্ণ সর্ষপ, রাইসরিষা। দোয়াস ও পলি মৃত্তিকাতে ইহা উৎপন্ন হয়, কিন্তু যে ভূমিতে বর্ষায় । জল না উঠে, সে ভূমিতে উৎপন্ন হয় না। বর্ষ সময়ে জল উঠে। অথচ কাৰ্ত্তিক মাসের পূৰ্ব্বে নামিয়া যায় এমন ভূমি ইহা বপনের নিমিত্ত মনোনীত করিবে । ঢাকা, রাজসাহী, পাবনা, ফরিদপুর, যশোহর, বরিশাল, কৃষ্ণনগর প্রভৃতি জেলাতে ইহার অধিক আবাদ হয় । কাৰ্ত্তিক মাস হইতে অগ্রহায়ণের প্রথমাৰ্দ্ধ বীজ বপনের সময়। এক বিঘা ভূমিতে দুই সেরের অধিক বীজ বপন করিতে হয় না। ঐ সময়ে ক্ষেত্রের অথবা চারের জল ক্ৰমে নামিতে থাকে। সুতরাং ঐ ভূমি ভিজা থাকিতে থাকিতে বীজ বপন করিতে হয়। ভূমি। শুষ্ক হইলে বপন