পাতা:ক্লিওপেট্রা (নবীনচন্দ্র সেন).pdf/২৭

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।

( ১৯ )

ফুরাল;—কি? সিজারের রাজ্য-অভিষেক?
কেন আনন্দের ধ্বনি থামিল হটাৎ?
নিরবিল যন্ত্রীদল? কেন অকস্মাৎ
এই হাহাকার? সখি দেখিনু সম্মুখে;
কি দেখিনু? ইহ জন্মে ভুলিব না আর।
ভূপতিত, হা অদৃষ্ট! বীরেন্দ্র সিজার!
কোথায় মুকুট সখি! বক্ষে তরবার!”
কণ্টকিল রমণীর কম কলেবর;
বিস্ফারিল নেত্রদ্বয়; সহিল না আর
অবলা-হৃদয়, মূর্চ্ছা হইল রমণী।
 সুগন্ধ তুষার-বারি, নয়নে, বদনে,
তুষার উরস শ্বেতে, সহচরীদ্বয়
বরষিল; কিছুক্ষণ পরে রূপসীর
অচল হৃদয়-যন্ত্র, জীবন-পবন-
স্পর্শে চলিল আবার; খুলিল নয়ন,—
প্রভাতে দক্ষিণানীল কোমল পরশে,
উন্মিলিল যেন ধীরে কমলের দল।
অৰ্দ্ধ-উন্মিলিত নেত্র, এক দৃষ্টে চাহি
কক্ষে বিলম্বিল এক চারু চিত্র-পানে,
বলিতে লাগিল বামা—“ওই, সহচরি!