পাতা:খগোলবিবরণ (নবীনচন্দ্র দত্ত).pdf/১৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

১৮ খগোল বিবরণ। . . . সুর্য আলোকদ্বার। দীপ্ত হইয়। চন্দ্রলোকে দৃষ্ট হয় । আমদ্বিগের দৃষ্টিতে যে ৰূপ চন্দ্রকলার হ্রাস বৃদ্ধি হইতেছে, চন্দ্রলোক বাসীদিগের দৃষ্টিতেও পৃথিবীর তন্তুপ হ্রাস বৃদ্ধি ক্রমে প্রকাশ পাইয়। থাকে। যদিও পূর্ণিমা ব্যতীত অন্য তিথিতে চন্দ্রসিম্বে কিয়, কল। মাত্র সুপ্রকাশিত দেখা যায়, তথাপি অবশিষ্ট তাবৎ ভাগ মলিন ৰূপে দৃষ্টিগোচর হইয়া থাকে, যেহেতু চন্দ্র আলোক দ্বারা পৃথিবী যে প্রকার দীপ্ত হয়, তদুপ পৃথিবীর প্রতিভা দ্বারাও চন্দ্ৰবিম্ব জে) ifতৰ্ব্বিশিষ্ট হইয়। কথঞ্চিৎ প্রকাশিত হইয়। থাকে । ঐ প্রতিভার চঞ্জের সুসর-বর্ণ হয় । ১৭৭ ৪ খৃস্টাব্দের ১৪ই ফিব্রুয়ারিতে ধূসরবর্ণ পরিবৰ্ত্তিত হইয়া ঈষৎ পীতের অভাযুক্ত হরিদ্বর্ণ হইয়াছিল, ই ছ। দেখিয়া লেয়ুট', সামক একজন জ্যোতিৰ্বিদ পণ্ডিত লিখি যুগছেন, তৎকালে আমেরিকার দক্ষিণখণ্ডের অন্তর্বত্তী মহারণ্যের ছfরদ্বর্ণ আভ চন্দ্ৰম গুলে পতিত হইয়। চন্দ্রের ঐ প্রকার বর্ণ ব্যতিক্রম হইয়াছিল । দে গণ ও পিতৃগণ চন্দ্রের সুধা পান করেন এপ্রযুক্ত চন্দ্রের কলা ক্রমশঃ হ্রাস হইতে থাকে, ইহ। পৌরাণিক কল্পনা । বাস্তবিক এদেশীয় জ্যোতিষ সিদ্ধান্তে স্লষ্ট ৰূপে নিৰ্দ্দিষ্ট আছে যে, সূৰ্য্যরশ্মি দ্বার। চন্দ্রের প্রকাশ হয় এবং তাছার গতির নিয়মানুসারে যখন তাহার প্রকাশিত পার্থের সমস্ত অংশ দৃষ্ট হয়, তখন তাহ। পুর্ণচন্দ্র শব্দে উক্ত হয় এবং সেই দৃষ্ট অংশের নুনাধিক ত্রমে চন্দ্রকলার হ্রাসবৃদ্ধি বলা যায় । ।